বন্দরে পুলিশ সোর্স আনিস হত্যায় সাত জনের নামে মামলা গ্রেফতার-১

0
127

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি শিপু: বন্দরে পুলিশ সোর্স আনিছ (৩২) হতাকান্ডের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। নিহতের বড় ভাই মোঃ জামান মিয়া বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ৭ জনের নাম উল্লেখ্য করে বন্দর থানায় এ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-৭৮(৫)১৭। পুলিশ এজাহার পেয়ে ওই রাতে উত্তর সাবদী এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহার নামিয় আসামী রুবেল (২৬)কে গ্রেপ্তার করেছে। বিভিন্ন সূত্রে ও

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের কলাবাগস্থ আইসতলা বিলে ড্রেজারের মাধ্যমে বালু ভরাটের কাজ করানো কে কেন্দ্র করে আইচতলা এলাকার হাজী আমিন উদ্দিন মিয়ার ছেলে পুলিশ সোর্স আনিছের সাথে একই ইউনিয়নের উত্তর সাবদী এলাকার আব্দুল আউয়াল মিয়ার ছেলে শাহ আলম মিয়ার সাথে র্দীঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টায় উত্তর সাবদী এলাকার আব্দুল রশিদ মিয়ার ছেলে রুবেলের ব্যবহারকৃত ০১৯-৩২২৯৭০৪০ নাম্বারে ফোন থেকে ফোন করে আনিছকে নারাণগঞ্জ বাসা হইতে সাবদী বাজারে ডেকে আনে। পরে পৌনে ৩টায় পুলিশ সোর্স আনিছকে কালি মন্দিরের সামনে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

স্থানীয় এলাকাবাসী আহত পুলিশ সোর্সকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন। ঘটনার ওই দিন রাতে নিহতের বড় ভাই জামান মিয়া বাদী হয়ে বন্দর থানার আইচতলা কলাবাগ এলাকার আব্দুল আউয়াল মিয়ার ছেলে শাহ আলম, একই এলাকার মৃত দিদার মিয়ার ছেলে পারভেজ, হারুন মিয়ার ছেলে সজল, উত্তর সাবদী এলাকার আব্দদুর রশিদ মিয়ার ছেলে রুবেল, চিনারদী এলাকার শাহ আলম মিয়ার ছেলে রাজু, আইচতলা এলাকার কলাবাগ এলাকার মৃত দিদার মিয়ার ২ ছেলে ফয়সাল ও শামীমকে আসামী করে মামলা দায়ের করলে পুলিশ ওই রাতে মামলার ৪নং আসামী রুবেলকে তার বাড়ী থেকে গ্রেপ্তার করে। নিহতের ভাই জামান জানান, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খান মাসুদের বেপারে আমি কোন মন্তব্য করিনি। আমার ভাইকে হত্যা করা হয়েছে ড্রেজারের ব্যবসাকে কেন্দ্র করে। যারা খুন করেছে তাদের নাম মামলায় দেওয়া হয়েছেG।

এ ব্যপারে বন্দর থানার ওসি আবুল কালাম বলেন, থানায় আনিসের হত্যা মামলা রুজু করা হয়েছে ইতি পূর্বে বন্দরে কেউ খুন করে বেশি দিন পালিয়ে থাকতে পরেনি আনিসের খুনিরাও পালিয়ে থাকতে পারবেনা। ইতি মধ্যেই মামলার আসামী রুবেলকে আমরা আটক করতে সক্ষম হয়েছি। বাকি আসামীদেরও গ্রেফতারের অভিযান চলছে। রুবেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৩ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে শুক্রবার দুপুরে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।