জিততেই হবে আর্জেন্টিনাকে

0
73

প্রতিপক্ষ হিসেবে পেরু হয়তো খুব শক্তিশালী নয়, তবে ব্যাপারটা যখন বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের ‘এসপার না হয় ওসপার’, তখন পেরু কিন্তু বেশ কঠিন সময়ই উপহার দিয়েছে আর্জেন্টিনাকে। ১৯৭০ সালের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আমেরিকা থেকে যে চারটি দল খেলেছিল মূলপর্বে, তাতে ছিল না আর্জেন্টিনার নাম।

কারণ বাছাই পর্বের শেষ ম্যাচে নিজমাঠে পেরুর সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করে আর্জেন্টিনা। তাতে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপের টিকিট পায় পেরু। আবার ১৯৮৬-র বিশ্বকাপ, যেটায় শিরোপা জিতেছিল আর্জেন্টিনা; সেবারের বাছাই পর্বেও শেষ ম্যাচটি ২-২ গোলে ড্র করে আর্জেন্টিনা ও পেরু। তাতে করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে বিশ্বকাপে খেলে আর্জেন্টিনা আর রানার্স-আপ হয়ে প্লে-অফ খেলতে হয় পেরুর, যেখান থেকে তারা বিদায় নেয় চিলির কাছে হেরে। সেই ম্যাচে ৮১ মিনিটে আর্জেন্টিনার হয়ে সমতাসূচক গোল করা রিকার্দো গারেকাই এখন পেরুর কোচ! এবারও বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে গুরুত্বপূর্ণ এক বাঁকের মুখে দাঁড়িয়ে দুই দল। সমান ২৪ পয়েন্ট দুই দলেরই, গোল ব্যবধানে এগিয়ে থেকে চতুর্থ পেরু আর পঞ্চম আর্জেন্টিনা। স্থানীয় সময় ৫ তারিখ রাত সাড়ে ৮টায় (বাংলাদেশ সময় শুক্রবার ভোর সাড়ে ৫টা) মুখোমুখি হওয়া দুই দলের বিশ্বকাপ-ভাগ্য অনেকাংশেই নির্ভর করছে এই ম্যাচের ফলের ওপর। কারণ দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চল থেকে সেরা চার দলই সরাসরি খেলবে বিশ্বকাপে, পঞ্চম দলকে খেলে আসতে হবে প্লে-অফ।

আর্জেন্টিনা দলের মহাব্যবস্থাপক হোর্হে বুরুচাগার কাছে এই ব্যাপারটা এমন অতীতের পুনরাবৃত্তিই মনে হচ্ছে, ‘চাইলে এমনটা বলা যেতে পারে।

আগের দুটি ম্যাচ ড্র করলেও বুরুচাগা মনে করছেন, শেষ পর্যন্ত বৈতরণী পার করবে আর্জেন্টিনা, ‘উৎসাহ আর জোরালো ইচ্ছাশক্তি একটা বড় ভূমিকা রাখবে। দলের চেহারাটা দারুণ হয়েছে, আশা করছি আমরা বিশ্বকাপে খেলতে পারব। ’ অন্যদিকে উভয় সংকট পেরুর কোচ গারেকার সামনে। একদিকে নিজের দেশ অন্যদিকে চাকরি! আকাশি-নীল জার্সিতে ২০ ম্যাচ খেলা সাবেক এই ফরোয়ার্ড বলছেন, ‘ব্যাপারটা বেশ আবেগপ্রবণ। এটা খুবই ব্যক্তিগত ব্যাপার, একদম নিজস্ব। আমি পেশাদার, যা হবে সবই শুধুমাত্র ফুটবল-সংক্রান্ত। এর সঙ্গে আবেগের কোনো সম্পর্ক নেই। ’

বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের এই সপ্তাহান্তে ব্রাজিলের খেলা বলিভিয়ার সঙ্গে, তাদের মাঠে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় তিন হাজার মিটার ওপরের এই স্টেডিয়ামে খেলাটা কঠিন। তবে বিশ্বকাপ নিশ্চিত হয়ে যাওয়াতে এই ম্যাচের ফল খুব একটা প্রভাব ফেলবে না তিতের দলের ওপর। চিলির খেলা ইকুয়েডরের বিপক্ষে। কোপা আমেরিকার দুই আসরের চ্যাম্পিয়ন চিলির বিশ্বকাপ যাত্রা পড়েছে অনিশ্চয়তার মুখে, পয়েন্ট টেবিলে তারা ছয়ে। অন্তত প্লে-অফের আশা টিকিয়ে রাখতে হলেও তাদের জয়ের বিকল্প নেই। উরুগুয়ে খেলবে পয়েন্ট তালিকার একদম নিচের দল ভেনিজুয়েলার সঙ্গে, কলম্বিয়ার প্রতিপক্ষ প্যারাগুয়ে। এই রাউন্ডের পর গ্রুপ পর্বে বাকি থাকবে আর এক রাউন্ডের খেলা।

সুত্র : ফিফা

#বাংলাটপনিউজ/আরিফ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here