শরীয়তপুরে প্রতারণার মাধ্যমে ওয়ারিশদের জমি দখলের অভিযোগ

0
207

বিশেষ প্রতিবেদন ॥ শরীয়তপুরে এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে ওয়ারিশদের ঠকিয়ে জায়গা জমি দখলে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনা শরীয়তপুর সদর উপজেলার ডোমসার ইউনিয়নের ভাষ্কর্দী গ্রামে। ওই গ্রামের এক সময়ের প্রভাবশালী আব্দুর রহমান মোল্যা তার দাদার ওয়ারিশদের ঠকিয়ে জালিয়াতির মাধ্যমে ওয়ারিশদের জমি নিজের দখলে নেয়। বর্তমানে এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, ভাষ্কর্দী গ্রামেরম আব্দুল মোল্যা ৫ ছেলে ও তিনি মেয়ে এবং ১ একর ৫৭ শতাংশ জমি রেখে মারা যান। আব্দুল মোল্যার সন্তানরা হলেন আইয়ুব আলী মোল্যা, তালেব আলী মোল্যা, আশ্রাফ আলী মোল্যা, ইসমাইল মোল্যা, লতিফ মোল্যা, মেয়ে বরু বিবি, সোনাবান বিবি ও সুর্যবান বিবি। আব্দুল মোল্যার রেখে যাওয়া জমি হচ্ছে ভাষ্কর্দী মৌজার এসএ ১০৯ নং খতিয়ানের ১৫৭ নং দাগে ৩৬ শতাংশ, ১৭০নং খতিয়ানে ১৭৭ নং দাগে ২৭ শতাংশ, ১০৮নং খতিয়ানে ১৪৯ নং দায়ে ৫৮ শতাংশ ও ১৭৩নং খতিয়ানে ১৫৭নং দাগে ৩৬ শতাংশ সহ মোট ১৫৭ শতাংশ। এর মধ্যে ১৫৭ নং দাগে ৩৬ শতাংশ জমিতে আব্দুল মোল্যা ও তার ছেলেদের ৫টি বসতঘর ছিল।

হিস্যা মতে আব্দুল মোল্যার বড় ছেলে রহমান মোল্যার বাবা আইয়ুব আলী মোল্যা ১২ শতাংশ জমির মালিক হতে পারে। কিন্তু আইয়ুব আলী মোল্যার ছেলে রহমান মোল্যা প্রতারণার মাধ্যমে বাপ-দাদার জমিকে খাস জমি দেখিয়ে ওয়ারিশদের সাথে প্রতারণা করে প্রভাব খাটিয়ে বিআরএস রেকর্ডে নিজের নামে রেকর্ড করে নেয়। এরপর প্রভাবশালী রহমান মোল্যা তার পূর্ব পুরুষ আব্দুল মোল্যার অন্যান্য ওয়ারিশদের ভোগ দখলীয় জমি থেকে উচ্ছেদ করতে থাকে। পরবর্তীতে এ নিয়ে দ্বন্দ্ব বিবাদ সৃষ্টি হলে রহমান মোল্যা যার যার জমি তাদের বুঝিয়ে দেয়ার আশ্বাস দিয়ে কালক্ষেপন করতে থাকে। এ অবস্থায় রহমান মোল্যা মারা গেলে তার ইতালী প্রবাসী ছেলে পরাগ মোল্যা ও সোহাগ মোল্যা বিষয়টি সমাধানের পথে না গিয়ে উল্টো বিভিন্ন ভাবে ওয়ারিশদের হুমকি ধমকি সহ বিভিন্ন ভাবে হয়রানী করছে। বর্তমানে তালেব আলী মোল্যার ছেলে মান্নান মোল্যা তার জায়গায় ঘর নির্মাণ করতে গেলে আব্দুর রহমান মোল্যার ছেলেরা বাধা বিঘœ সৃষ্টি করে। তারা সেখান থেকে ঘর সরিয়ে নিতে মান্নান মোল্যাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। এমনকি এসপি অফিসে অভিযোগ করে পুলিশ দিয়েও তাদের হয়রানী করার চেষ্টা করছে। এ নিয়ে মান্নান মোল্যা সহ অন্যান্য ওয়ারিশ এবং আব্দুর রহমান মোল্যার ছেলেদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

স্থানীয়রা জানান, আব্দুর রহমান মোল্যা সম্পূর্ন অন্যায়ভাবে প্রভাব খাটিয়ে বাপ-দাদার জমিকে খাস জমি দেখিয়ে ওয়ারিশদের ঠকিয়ে নিজের নামে রেকর্ড করে নেয়। পরে ওয়ারিশদের জমি থেকে উচ্ছেদ করে। আশরাফ আলী মোল্যার ছেলে সিরাজ মোল্যা বলেন, এই সম্পতির মূল মালিক আব্দুল মোল্যা। আব্দুল মোল্যার ৫ ছেলে ও ৩ মেয়ে সম্পতির ওয়ারিশ। আব্দুল মোল্যার ৫ ছেলের মধ্যে রহমান মোল্যার বাবা আইয়ুব আলী একজন। রহমান মোল্যা তার বাবা আইয়ুব আলী মোল্যার অন্যান্য ওয়ারিশ সহ তার দাদার ওয়ারিশদের জমিও খাস জমি দেখিয়ে ভুয়া কাগজপত্র তৈরী করে ১ একর ১০ শতাংশ জমি নিজের নামে বিআরএস রেকর্ড করে নেয়। এসএ এবং আরএস রেকর্ড মূলে এই জমির মালিক আব্দুল মোল্যার ওয়ারিশ আমরা। আব্দুল মোল্যার ১ একর ৫৭ শতাংশ জমির মধ্যে ১৩ ভাগে রহমান মোল্যা ১২ শতাংশ জমি পেতে পারে। কিন্তু সে ১ একর ৫৭ শতাংশ জমির মধ্যে ১ একর ১০ শতাংশ জমির মালিক কিভাবে হয় এটাই আমার প্রশ্ন। আমরা এই জমি নিয়ে আদালত করতেছি। আদালত যেই রায় দিবে আমরা সেই রায় মেনে নেব।

আব্দুল মোল্যার ১ একর ৫৭ শতাংশ জমির মধ্যে আইয়ুব আলী মোল্যার ছেলে রহমান মোল্যা একাই ১ একর ১০ শতাংশ জমির মালিক কিভাবে হয়েছে জানতে চাইলে রহমান মোল্যার মোল্যার ছেলে সোহাগ মোল্যা বলেন, আমার বাবা বিভাবে জমির মালিক হয়েছে তা আপনাদের কাছে বলবো না। সেটা ভুমি কর্মকর্তা, পুলিশ ও আদালত আছে তাদের কাছেই বলবো।