বিক্ষোভের মুখে ডুয়েট বন্ধ ঘোষণা, হল ছাড়ার নির্দেশ

0
162

পরীক্ষা পেছানোর দাবিতে গাজীপুরে ঢাকা প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ডুয়েট) শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে ক্যাম্পাস বন্ধ ঘোষণা করেছে প্রশাসন। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগেরও নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বুধবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যায়ের একাডেমিক কাউ‌ন্সিলের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এর আগে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে ব্যাপক ভাঙচুর করে। ঘটনার পর থেকে ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এরপরে বুধবার বিকেল সাড়ে তিনটার মধ্যে ও ছাত্রীদের বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশনা দেয়া হয়।

ডুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউর রহমান রাসেল জানান, ডুয়েটের সব বিভাগের পরীক্ষা শুরুর পূর্ব নির্ধারিত তারিখ ছিল ২ নভেম্বর। মঙ্গলবার বিকেলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা ভিসির কাছে পরীক্ষার তারিখ পেছানোর দাবি জানায়। ভিসি তাদের দাবি না মেনে বাসায় গিয়ে তাদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে বলেন।বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে গিয়ে প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন। একপর্যায়ে তারা ঢাকা-শিমুলতলী সড়কে অবস্থান নেন এবং সড়ক অবরোধ করেন। কয়েকজন শিক্ষক সেখানে গিয়ে তিন শিক্ষার্থীকে ধরে নিয়ে যান। এ সময় তাদের গায়ে হাত তোলা হয় বলে অভিযোগ করেন কয়েকজন শিক্ষার্থী।
 
এ খবর শুনে ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীদের মাঝে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরে তারা ক্যাম্পাসে ভাঙচুর চালায়। উপাচার্য অধ্যাপক মো. আলাউদ্দিন জানান, ৩০-৪০ জন শিক্ষার্থী ২ নভেম্বরের পরীক্ষা পেছানোর দাবি জানায়। তাদের দাবি না মেনে চলে যেতে বলায় শিক্ষার্থীরা সন্ধ্যায় পাশের রাস্তায় অবস্থান নিয়ে গাড়ির টায়ারে অগ্নিসংযোগ ও রাস্তা অবরোধ করে। তারা তা না শুনে বিক্ষোভ চালিয়ে যায় এবং ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। এতে কয়েকজন শিক্ষক ও কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।পরে রাত ১০টার দিকে শিক্ষার্থীরা প্রধান ফটক ভেঙে ক্যাম্পাসে তাণ্ডব চালায়। কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। এছাড়াও লাইব্রেরি ভবনের নীচতলায় ভাঙচুর চালায়। পরে পুলিশ এসে রাত ১১টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

#বাংলাটপনিউজ/আরিফ