নেতা কর্মীদের প্রতি ‘নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন’-খালেদা জিয়া

0
137

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহনের জন্য নেতা কর্মীরে নির্দেশ দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। শেখ হাসিনার অধীনে কোন নির্বাচন করবে না তাঁরা। ইভিএম বাতিল ও নির্বাচনকালে সেনা মোতায়েন না করলেও বিএনপি নির্বাচন বয়কট করবে। পাশাপাশি এই নির্বাচনে মাঠ পর্যায়ে দলের ঐক্য প্রতিষ্ঠার স্বার্থে বিবাদমান নেতাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিবেন বেগম খালেদা জিয়া।

শনিবার রাতে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বেগম খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে দলের ভাইস চেয়ারম্যানদের এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। দলের নেতারা জানান, দ্রুত জেলা কমিটিগুলোর পুনর্গঠন শেষ করার নির্দেশ দিয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। যেসব জেলায় বিরোধ আছে তা চিহ্নিত করে শিঘ্রই মিমাংসা করার জন্য বলেছেন তিনি। যারা দলে বিভেদ-বিশৃংখলা করবে তাদের বহিস্কার করা হবে বলে কড়া হুশিয়ারী দেন তিনি। বৈঠকে চেয়ারপারসনের কয়েকটি জেলা সফর নিয়েও আলোচনা করা হয়।

দলের ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে বলেছেন ম্যাডাম। সংগঠন শক্তিশালী করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, নির্বাচনে বিএনপি অংশ নিবে, এটি খুব সাধারণ বিষয়। গণতান্ত্রিক দল হিসেবে নির্বাচনই চূড়ান্ত। কিন্তু নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সহায়ক সরকার, সেনা মোতায়েন, ইসির নিরপেক্ষতা, সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিবেশ না হলে কিভাবে নির্বাচনে যাবে।

বৈঠকে বেগম খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান এম মোর্শেদ খান, হারুন আল রশিদ, আবদুল্লাহ আল নোমান, অধ্যাপক আবদুল মান্নান, আবদুল মান্নান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, শাহজাহান ওমর, হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সেলিমা রহমান, আলতাফ হোসেন চৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলু, মোহাম্মদ শাহজাহান, মীর মো. নাসিরউদ্দিন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, মাহমুদুল হাসান, ইনাম আহমেদ চৌধুরী, আমিনুল হক, অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, শামসুজ্জামান দুদু, আহমেদ আজম খান, জয়নাল আবেদীন, নিতাই রায় চৌধুরী, গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও শওকত মাহমুদসহ ২৬ জন। দলের সর্বশেষ কাউন্সিলে ৩৪ জন ভাইস চেয়ারম্যান করা হয়।