ইবিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনে পুলিশ ও ছাত্রলীগের বাধা

0
499

ইবি প্রতিনিধি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কারের দাবিতে ক্লাস, পরীক্ষা বর্জন করে আন্দোলন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। সোমবার সকাল সাড়ে দশটা থেকে বিভিন্ন অনুষদের শিক্ষার্থীরা আন্দোলনে অংশ গ্রহণ করে। এসময় বিশ্ববিদ্যাল প্রশাসন, পুলিশ ও ছাত্রলীগের বাধায় আন্দোলন প- হয়ে যায়।


প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশে কোটা সংস্কারের আন্দোলনে গ্রেফতার কৃতদের মুক্তির দাবিতে আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা। এসময় বিভিন্ন স্লোগানে প্রকম্পিত হয় ক্যাম্পাস। আন্দোলন কারীরা মিছিল নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিবের পাদদেশে এসে অবস্থান নেয়।


এদিকে সকাল থেকেই ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের বাইরে পুলিশকে অবস্থান নিতে দেখা যায়। পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বাড়তে থাকলে কুষ্টিয়া সদর থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়। এরপর বেলা ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতা কর্মীদের প্রধান ফটকের বাইরে পুলিশের সঙ্গে অবস্থান নেয়। এসময় শিক্ষার্থী, পুলিশ ও ছাত্রলীগকে ত্রিমুখী অবস্থান নিতে দেখা যায়। এরপরও শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করতে থাকলে প্রক্টরিয়াল বডি ও ছাত্রলীগ হুমকি দিতে থাকে।


একপর্যায়ে সহকারী প্রক্টর সাজ্জাদুর রহমান টিটু পুলিশে আটকের হুমকি দিলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন থামাতে বাধ্য হয়। এর আগে শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা আন্দোলনে অংশ নিলে তাদেরকে সেখান থেকে জোরপূর্বক নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় বিশ^বিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক শাহিনুর রহমানকে পুলিশের সঙ্গে অবস্থান নিতে দেখা যায়। এদিকে আন্দোলন দমানোর উদ্দেশ্যে বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়ে ক্লাস করতে বাধ্য করার অভিযোগও পাওয়া গেছে।


আন্দোলন প- হওয়ার বিষয়ে আন্দোলন কারীরা জানান, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হুমকিতে আমরা আন্দোলন থামাতে বাধ্য হয়েছি। কিন্তু কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী কোটা সংস্কার না হওয়া পর্যন্ত আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব। এছাড়াও ছাত্রদের যৌক্তিক দাবি আদায়ের আন্দোলনে ছাত্রসংগঠন কর্তৃক বাধা দেয়ার বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা।’