সাংবাদিকতায় ঝুঁকি বেড়েছে: মেয়র আরিফ

0
92

সিলেট প্রতিনিধি: সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছেন, ‘সাংবাদিকতা পেশা এখন আর আগের মত নেই। এখন সাংবাদিকতায় ঝুঁকি যেমন বেড়েছে তেমনি দায়িত্বশীলতাও বেড়েছে। সাংবাদিকদের লেখনী আমাদের অনেক ভুলত্রুটি ধরিয়ে দেয়। তাদের লেখার কারণে আমরা সহজে সমাজের অনেক দুঃখ-দুর্দশা ও বঞ্চনার কথা জানতে পারি।’

শনিবার জেলা পরিষদ মিলনায়তনে সাংবাদিকতা বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি নবীন সংবাদকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘যে কোনো পেশাকে ধ্যান-জ্ঞান মনে করলে সফলতা অবশ্যই আসবে।’

বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস জার্নালিস্ট কমিশনের সভাপতি ফয়সল আহমদ বাবলুর সভাপতিত্বে ও ট্রেনিং কো- অর্ডিনেটর মুকিত রহমানীর পরিচালনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির (এসএমসিসিআই) সভাপতি হাসিন আহমদ, সময় টিভির সিলেট ব্যুরো প্রধান ইকরামুল কবির, সাংবাদিক ও কলামিস্ট আফতাব চৌধুরী, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওয়েছ খছরু।

অন্যানের মধ্যে বক্তব্য দেন সিনিয়র সাংবাদিক সাত্তার আজাদ, সাংবাদিক শাহাব উদ্দিন শিহাব, ইউএনবির ব্যুরো প্রধান মোহাম্মদ মহসীন, দৈনিক উত্তরপূর্বর যুগ্ম বার্তা সম্পাদক নেহার রঞ্জন পুরকায়স্থ, বাংলানিউজের সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট মো. নাসির উদ্দিন, শুভ প্রতিদিনের চিফ সাব এডিটর আনন্দ সরকার, সিলেটেরকন্ঠের সিনিয়র রিপোর্টার অমিতা সিনহা, এসিড সন্ত্রাস নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক জুরেজ আব্দুল্লাহ গুলজার, সমকালের ফটোসাংবাদিক ইউসুফ আলী।

কর্মশালার সমাপনী দিনে টিভি সাংবাদিকতা বিষয়ক সেশনে অংশ নেন যমুনা টেলিভিশনের সিলেটের ব্যুরো প্রধান মাহবুবুর রহমান রিপন, সাংবাদিকতা ও সংবাদ উপাদান নিয়ে সিলেটের সিনিয়র সাংবাদিক সিলটিভির প্রধান সম্পাদক আল আজাদ, টিভি সাংবাদিকতায় উচ্চারণ বিষয়ে সময় টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার আব্দুল আহাদ, অপরাধ সাংবাদিকতা বিষয়ে সেশনে অংশ নেন দৈনিক যায়যায় দিনের সিলেট ব্যুরো প্রধান কাইয়ুম উল্লাস।

সমাপনী অনুষ্ঠানে সিলেটের বেশ কিছু অনুসন্ধানী সংবাদ প্রকাশ করায় স্থানীয় দৈনিক উত্তর পূর্বের স্টাফ রিপোর্টর তুহিনুল হক তুহিনকে বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস জার্নালিস্ট কমিশনের পক্ষ থেকে সম্মাননা ক্রেস্ট প্রদান করা হয়।
প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে বক্তব্য দেন ফরিদা আলম, লিমা বেগম, জনি রায়, তাইনুল ইসলাম আসলাম, ইফতেহাদুল। পরে অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে সনদ বিতরণ করা হয়।