নারায়ণগঞ্জ বন্দরে কাপড় ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে জখম

0
147

নারায়ণগঞ্জ বন্দর প্রতিনিধি: দোকানে পা তোলে বসে থাকার অপরাধে কাপড় ব্যবসায়ী বিদুৎত মল্লিক (৩০)কে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে মারত্মকভাবে জখম করেছে মাদক স¤্রাট আজিজের পালিত সন্ত্রাসী রায়হানসহ তার সাঙ্গপাঙ্গরা। বুধবার সন্ধ্যায় সাড়ে ৭টায় বন্দর উপজেলার ফরাজিকান্দা লাহরবাড়ীস্থ এমদাদ মিয়ার মুদী দোকানের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী কাপড় ব্যবসায়ীকে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে খানপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢামেক হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে আহত কাপড় ব্যবসায়ী মা বিউটি বেগম বাদী হয়ে ঘটনার ওই রাতে ৩ জনের নাম উল্লেখ করে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগ পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

প্রত্যেক্ষদশি ও আহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, মুন্সিগঞ্জ জেলার লোহজং থানার নূরপূর এলাকার মৃত নজরুল ইসলামের ছেলে কাপড় ব্যবসায়ী বিদুৎত মল্লিকসহ তার পরিবার র্দীঘ দিন ধরে দড়িসোনাকান্দা এলাকার জনৈক কচি মিয়ার বাড়ী ভাড়াটিয়া হিসেবে র্দীঘ দিন ধরে বসবাস করে আসচ্ছে।

এর ধারাবাহিকতায় বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় কাপড় ব্যবসায়ী বিদুৎত মল্লিক সারাদিন কাপড় বিক্রি করে তার ভাড়াটিয়া বাড়ী সামনে সাইদুর মিয়ার দোকানে চা খেতে আসে। ওই সময় কাপড় ব্যবসায়ী বিদুৎত মল্লিক দোকানে পা তোলে বসলে এ নিয়ে ফরাজিকান্দা এলাকার রাশেদ মিয়ার ছেলে ও বন্দর থানার তালিকাভূক্ত কুখ্যাত মাদক স¤্রাট আজিজ ওরফে আইজ্জার শ্যালক সন্ত্রাসী রায়হান ও দড়িসোনাকান্দা

এলাকার নবিল হোসেন মিয়ার ছেলে মাদক সেবী আবু বক্করের কথা কাটাকাটি হয়। কথা কাটাকাটির ৩০ মিনিটের ব্যবধানে সন্ত্রাসী রায়হান ও তার পিতা রাশেদসহ আবু বক্কর ক্ষিপ্ত হয়ে ধারালো ছুরি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলোপাথারী ভাবে কুপিয়ে মারাত্মক কাটা জখম করে কাপড় বিক্রির নগদ ১৭ হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

এলাকাবাসী জানিয়েছে, সোনাকান্দা বেপারীপাড়া এলাকার মাদক স¤্রাট আজিজের সাথে বন্দর থানার পুলিশের বেশ কয়েকজন দারোগার সাথে গভীর সখ্যতা থাকার কারনে তার শ্যালক রায়হান দড়িসোনাকান্দা, বেপারীপাড়া ও ফরাজিকান্দা এলাকায় অবাধে মাদক ব্যবসাসহ সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের নেতৃত্ব দিয়ে আসচ্ছে। মাদক স¤্রাট আইজ্জার শেল্টারে তার শ্যালক রায়হান আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

এ ব্যাপারে বন্দর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হলেও এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত এ ঘটনায় জড়িত কাউকে গ্রেপ্তারের সংবাদ জানতে পারেনি পুলিশ।