রাজধানীসহ সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১৫

0
91

সারাদেশে চলমান মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীসহ সারাদেশে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ অন্তত ১৫ জন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দাবি, নিহতের সবাই মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

ঢাকা: মঙ্গলবার দিনগত রাত ৩টার দিকে রাজধানীর ভাষানটেক দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিন মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন- আতাউর রহমান আতাসহ (৪৬), বাপ্পি (৩৮) ও মোস্তফা হাওলাদার ওরফে কসাই মোস্তফা (৫০)। ঘটনাস্থল থেকে দু’টি পিস্তল ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ। অন্যদিকে, আশুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ডাকাত নিহত হয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

মাগুরা শহরতলীর বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকা থেকে তিন মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে লাশ তিনটি উদ্ধার করা হয়। তারা হচ্ছেন- শহরের ভায়না চোপদারপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন চোপদারের ছেলে বাচ্চু চোপদার (৫৫), ইসলামপুর এলাকার আবদুর রাজ্জাক ঢালি’র ছেলে রায়হান ঢালি ব্রিটিশ (২০) এবং নতুন বাজার বৈরাগি পাড়ার খোকন অধিকারির ছেলে কিশোর অধিকারি কালা (৪২)।

সদর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, রাত ১টার দিকে টহল পুলিশ গোলাগুলির সংবাদ পেয়ে বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকায় গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তিনজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখেন। পরে তাদের হাসপাতালে পাঠানো হলে পথেই সবার মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে ৩২০ গ্রাম হেরোইন, ১ কেজি গাঁজা, ৬ বোতল ফেনসিডিল, ৬টি রাইফেলের গুলি ও ৮টি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত তিনজনই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাদের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে।

চট্টগ্রাম নগরের টাইগারপাসের পলোগ্রাউন্ড এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইসহাক নামে (৩৫) এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। ইসহাক নগরের কোতোয়ালি থানার ঝাউতলা কলোনির মোহাম্মদ আলীর ছেলে। মঙ্গলবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব-৭ এর উপ-অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান বলেন, রাতে টাইগারপাসের পলোগ্রাউন্ডে মাদক বিক্রেতাদের অবস্থানের খবর পেয়ে র‌্যাবের মোবাইল টিম অভিযান চালায়। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে ইসহাক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন এবং তার সঙ্গীরা পালিয়ে যান। এসময় ঘটনাস্থল থেকে চার হাজার পিস ইয়াবা, একটি ওয়ান শুটার গান, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও পাঁচ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

কক্সবাজার সদর থানার কবিতা চত্বর এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে মো. মজিবুর রহমান (৪২) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ১৫ মিনিটের দিকে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনাটি ঘটে। নিহত মজিবুর রহমান নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেঁতুলিয়া গ্রামের মৃত আবদুর রশিদের ছেলে।

র‍্যাব-৭-এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মো. রুহুল আমিন বলেন, মাদক কেনা-বেচা হচ্ছে এমন খবর পেয়ে তারা সেখানে অভিযান চালায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সেখানে অবস্থানরত মাদক ব্যবসায়ীরা র‍্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। জবাবে র‍্যাবও গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলে একপর্যায়ে সেখানে থাকা ৪/৫ জন মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থলে মজিবুরের গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ পড়ে থাকে। ঘটনাস্থল থেকে মজিবুরের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করে র‍্যাব। সেখান থেকে ছয় হাজার পিচ ইয়াবা বড়ি, একটি দেশি ওয়ান শুটার, তিন রাউন্ড গুলি, দুইটি গুলির খালি খোসা উদ্ধার করে র‍্যাব।

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোসমত আলী নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিনগত রাত ১টার দিকে উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের লরিবাগ রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। রোসমত উপজেলার কালিকৃষ্ণ নগরের মৃত আলী আহমেদের ছেলে।

বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে জানান, মাদকের চালান যাচ্ছে, এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে লরিবাগ এলাকায় অভিযান চালানো হয়। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে রোসমত গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন এবং তার সঙ্গীরা পালিয়ে যান। এসময় ঘটনাস্থল থেকে পাইপগান, কার্তুজ ও ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়।

নড়াইলে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সজিব (২৬) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে নড়াইল-লোহাগড়া সড়কের মালিবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সজিব নড়াইল সদর উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের আলতাবের ছেলে।

সদর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, মাদক বিক্রির সংবাদে মালিবাগ এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে সবুজ গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন এবং তার সঙ্গীরা পালিয়ে যান। পরে সবুজকে উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১২ মামলার আসামি শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী তানজিল হোসেন (৪০) নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার সাতগাড়ি নতুনপাড়া এলাকায় এই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত তানজিল চুয়াডাঙ্গা শহরতলীর দৌলতদিয়াড় গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে। পুলিশ জানায়, ভোর পৌনে ৩টার দিকে তারা সাতগাড়ি গ্রামের নতুনপাড়ায় পৌঁছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের ওপর গুলিবর্ষণ শুরু করে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধে তালজিল নিহত হয়।

যশোরের বেনাপোলে দু’দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে ‘গোলাগুলিতে’ দুজন নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে বেনাপোলের বড়আঁচড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- বেনাপোল ভবেরবেড় গ্রামের মৃত শাহাজানের ছেলে লিটন (৩৪) ও অজ্ঞাত (৪০)। বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি অপূর্ব হাসান জানান, আজ ভোরে বেনাপোল বড়আঁচড়া এলাকায় দু’দল মাদক ব্যবসায়ীদের মধ্যে গোলাগুলি হচ্ছে বলে খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এ সময় সেখানে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুজনকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। নিহতদের লাশ ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ১০ কেজি গাজা, ১টি দেশি আগ্নেয়াস্ত্র, দুই রাউন্ড গুলি ও গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আশান হাবিব (৪৫) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছেন। এ সময় একটি ওয়ান শুটারগান, এক হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ২০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

বুধবার (৩০ মে) ভোর রাতে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়কের ঝাঐল ওভার ব্রিজের পাশের একটি ইউক্যালিপটাস বাগানের ভেতরে এ ‘বন্দুকযুদ্ধ’র ঘটনা ঘটে। নিহত আশান হাবিব কামারখন্দ উপজেলার কামারখন্দ হাটপাড়া গ্রামের ইজার উদ্দিনের ছেলে।