নাম বিকৃত করা প্রধানমন্ত্রীর সমীচীন হয়নি’- বদরুদ্দোজা চৌধুরী

0
42

বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ও সাবেক রাষ্ট্রপতি বদরুদ্দোজা চৌধুরী সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নাম বিকৃতি করেছেন এমন অভিযোগ করে উষ্মা প্রকাশ করেছেন । তিনি মন্তব্য করেন, এটা প্রধানমন্ত্রীর জন্য সমীচীন হয়নি ।

বি চৌধুরী বলেন, ‘প্রথম কথা আমার নাম বদরুদ্দোজা, এই নামটি আমাদের প্রিয় রাসুলের একটি সুন্দর পদবী। এর অর্থ হচ্ছে: ঘোর অন্ধকারে উজ্জ্বল পূর্ণ্ চন্দ্র। এই পবিত্র নামটি আমার স্নেহময় নানা আমার জন্য রেখেছিলেন।’

‘এই নামটিকে বিকৃত করে (অমুক কাকা) বলা প্রধানমন্ত্রীর সমীচীন হয়নি। পবিত্র কোরানুল কারিমে নাম বিকৃতির বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এটা স্মরণে রাখলে কৃতজ্ঞ থাকবো।’

শুক্রবার রাজধানীর একটি হোটেলে বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারা এই ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। গত বুধবার ভারত সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী গণভবনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সেখানে এক প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে বি চৌধুরীর সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বদু কাকারে বিএনপি বেশি দিন রাখে নাই। মাথায় পোটলা দিয়ে রেললাইনের তল দিয়ে দৌড় মারতে হয়েছে তাকে।

এ রকম অবস্থা তার জন্য সৃষ্টি হয়েছিল সেটাও তার মনে রাখা উচিত। বদরুদ্দোজা চৌধুরী কী বলল না বলল, আমার জবাব দেয়ার বিষয় না। ওনি আবার (খালেদার) মুক্তির দাবি করেন। রেললাইন দিয়ে দৌড়ালেন, আবার মুক্তির দাবি করেন। বলে না, মেরেছ কলসির কানা, তাই বলে কি প্রেম দেব না?’

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে বিএনপির সাবেক এই নেতা বলেন, ‘কাউকে তেল মারা বা খুশি করার জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করিনি। তার ব্যাপারে আইনের শাসন লঙ্ঘিত হয়েছে। আদালতের আদেশ সত্ত্বেও তাকে মুক্তি দেওয়া হয়নি।’

বি চৌধুরী বলেন, ‘যুক্তফ্রন্ট সৎ নেতৃত্বের তৃতীয় রাজনৈতিক শক্তির মঞ্চ হিসেবে ইতিমধ্যে জনগণের মনে ঝড় তুলেছে। জনগণের এই মঞ্চ দিন দিন শক্তিশালী হচ্ছে। যা অন্য দুটি রাজনৈতিক শক্তিকে ভারসাম্যের মধ্যে রাখতে পারবে। গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেনও আমাদের সাথে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছেন।’

জনগণ ভোট দিলে যুক্তফ্রন্ট জাতীয় নির্বাচনের পর পাঁচ বছরের জন্য একটি জাতীয় সরকার গঠন করবে বলেও জানান তিনি। বি. চৌধুরী যুক্তফ্রন্টের দাবির পুনরুল্লেখ করে বলেন, ‘নিরপেক্ষ সরকার ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন না হলে আগামী সংসদ নির্বাচন গ্রহণযোগ্য হবে না। সব দলের জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করতে হবে। নির্বাচনের ১০০ দিন আগে জাতীয় সংসদ ভেঙে দিতে হবে যাতে মন্ত্রী ও সংসদ সদস্যরা তাদের পদমর্যাদার সরকারি সুযোগ-সুবিধা ব্যবহার করতে না পারেন।’

মাদক ব্যবসার নামে নির্বিচারে মানুষ হত্যা করা হচ্ছে এমন অভিযোগ করে তিনি দেশের প্রচলিত আইনে মাদক ব্যবসায়ীদের বিচার করার দাবি জানান। মাদক ব্যবসা এরশাদের আমলে শুরু হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ডা. বি. চৌধুরী যখন শিক্ষক আমি তখন ছাত্র, ওনার মতো একজন দেশবরেণ্য ব্যক্তির নাম বিকৃতভাবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শিষ্ঠাচার বহির্ভূত কাজ করেছেন।’ তিনি সুষ্ঠু নির্বাচন আদায়ে শহীদ মিনারে গিয়ে শপথ নেওয়ার জন্য ডা. বি. চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেনের প্রতি আহ্বান জানান।

বিকল্প স্বেচ্ছাসেবকধারার সভাপতি বিএম নিজাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বিকল্পধারার কেন্দ্রীয় নেতা আবদুর রউফ মান্নান, ব্যারিস্টার ওমর ফারুক, শাহ আহম্মেদ বাদল, আবুল বাশার, গণ সাংস্কৃতিক দলের সভাপতি এস আই মামুন প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here