জেলে গিয়ে বিউটি কুইন, অতঃপর মৃত্যুদণ্ড

0
74

প্রেমিককে ২৫ বার ছুরিকাঘাতে হত্যার দায়ে ২৪ বছর বয়সী এক বিউটি কুইনকে মৃত্যূদণ্ড দিয়েছে কেনিয়ার আদালত। তবে কেনিয়ার মানবাধিকার সংগঠনগুলো এই শাস্তিকে ‘অমানবিক’ বলে আখ্যা দিয়েছে। কেননা দেশটিতে গত ৩১ বছর ধরেই মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়নি।

রুথ কামান্ডে নামের ওই বিউটি কুইন কারাগারে এক সুন্দরী প্রতিযোগিতায় সেরার মুকুট জয় করেন। ২০১৫ সালে তিনি তার ২৪ বছর বয়সী প্রেমিক ফরিদ মোহাম্মদকে হত্যা করেন এবং গত মে মাসে আদালত তাকে খুনের দায়ে দোষী বলে ঘোষণা করে।

তার বিরুদ্ধে ঠাণ্ডা মাথায় খুন করা এবং খুনের জন্য নিজের মধ্যে কোনো অনুশোচনা বা বিবেকের দংশন না থাকার অভিযোগও প্রমাণিত হয়।

বিচরাকরা বলেন, এমন একজন খুনিকে মৃত্যুদণ্ড না দিলে তাকে অন্যরা হিরো ভাবতে পারে।

কিন্তু মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মৃত্যুদণ্ডের এই রায়কে ‘নিষ্ঠুর, অমানবিক এবং সেকেলে’ বলে আখ্যা দিয়েছে।

অ্যামনেস্টি ইন্টার‌ন্যাশনাল বলছে, এই রায়ের ফলে এতদিন কেনিয়ায় মৃত্যুদণ্ডের সাজার বদলে দীর্ঘমেয়াদি কারাদণ্ড দেওয়ার যে ঐতিহ্য ছিল তা লঙ্ঘিত হয়েছে।

তবে নিহতের পরিবার বলছে, অপরাধের মাত্রার সঙ্গে তুলনায় এই সাজাই ঠিক আছে। কেননা তাদের ছেলে সবে মাত্র তার কর্মজীবন শুরু করেছিল। আর এমন সময়ই তার প্রাণ হরণ করা হলো।

প্রসঙ্গত, কেনিয়ায় ১৯৮৭ সাল থেকেই কোনো অপরাধে কাউকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়নি।

এমনকি ২০১৭ সালে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট ঘোষণা করে, খুন এবং সশস্ত্র ডাকাতির শাস্তি হিসেবে বাধ্যতামূলক মৃত্যুদণ্ডের যে সাজা আছে তা অসাংবিধানিক।

তবে মৃত্যুদণ্ডের সাজা একেবারে বিলুপ্ত করা হয়নি।

#বাংলাটপনিউজ/আরিফ