নারায়ণগঞ্জ বন্দরে চোর, ডাকাত ও পকেটমারের উপদ্রোপ বৃদ্ধি !

0
75

নারায়ণগঞ্জ বন্দর প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ বন্দরে চোর, ডাকাত ও পকেটমারের উপদ্রোপ ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এমন কথা জানিয়েছে সচেতন মহল। তারা আরো জানিয়েছে, বন্দরে চোর, ডাকাত ও পকেটমারের উৎপাত এতটাই বৃদ্ধি পেয়েছে প্রতিনিয়ত কোথাওনা কোথাও এ ধরনের ঘটনা ঘটছে।

বিশেষ করে বন্দর ১নং খেয়াঘাট, বন্দর আমিন আবাসিক এলাকা, বন্দর রুপালী আবাসিক এলাকা, বন্দর বাবু পাড়া, রেলী আবাসিক এলাকা, শাহিমসজিদ এলাকা, বাড়িপারা এলাকাসহ বন্দরের বিভিন্ন এলাকায় এ চুরি ও পকেট মারের ঘটনা ঘটছে। বন্দরে বিভিন্ন এলাকায় সরজমিনে ঘুরে জানতে পারা যায় গত এক সপ্তাহে ২জন নৈস প্রহরি হত্যাসহ ৩টি দোকানে ডাকাতি ঘটনা ঘটেছে, পকেটমারের খপ্পরে পরে ১৩ জন ব্যক্তি মোবাইল ও মানিব্যাগ খুইয়েছেন এবং ৮টি বাড়ি ও দোকানে চুরির ঘটনা ঘটেছে।

পকেটমারের খপ্পরে পরে মোবাইল মানিব্যাগ হারানো ব্যক্তিরা হলেন, এশারামপুর এলাকার জাকির, বন্দর সলপেরচক এলাকার হাসেম মিয়া, প্রান কম্পানীর সেলসম্যান সুমন, ব্যবসায়ী রহিম মিয়া, সোনারগাঁও বারদী এলাকার শাহীন, আমিন আবাসিক এলাকার শান্ত, পলাশ, রহিম, সোনাকান্দা এলাকার ফজল মিয়া, একরামপুর এলাকার মিলন, বন্দর জামাইপাড়া এলাকার কাশেম মোল্লা, বন্দর রেললাইন এলাকার হাছান ও রুপালী আবাসিক এলাকার সীমান্ত।

চুরি হওয়া বাড়ি ও দোকান গুলো বন্দর বাজারে আলী জেনারেল ষ্টোর, বন্দর বাজারে মোবাইল দোকানে, বন্দর থানার এএস আই জালাল হোসেনের বাসায়, বন্দর শাহী মসজিদ’স্থ ব্যবসায়ী রাইসুল ইসলাম, বন্দর আমিন আবাসিক এলাকার ৪নং গলির গফুর মিয়া, রুপালী আবাসিক এলাকার হোসেন মিয়ার বাড়ি, বন্দর বাজার জামে মসজিদ সংলগ্ন ম্যাক্স ডিজিটাল কম্পিউটার সেন্টারে।

বন্দর ১নং খেয়াঘাট সংলগ্ন একাধিক দোকানদার আমাদের বলেন, প্রায় সময় দেখি মানিব্যাগ নাহলে মোবাইল হারিয়ে এদিক সেদিক খোজা খুজি করে আমাদের কাছে দু:খ প্রকাশ করে। এব্যপারে বন্দর থানার ওসি এ কে এম শাহীন মন্ডল আমাদের বলেন, চুরি ও পকেটমারের ঘটনার একাধিক সংবাদ আমার কাছে এসেছে।

বন্দর থানা এলাকার সকল মানুষের জানমাল নিরাপদে রাখার লক্ষে টহল পুলিশকে জোরালো করা হয়েছে এবং অপরাধিদের যত দ্রুত সম্ভব আইনের আওতায় আনা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here