আওয়ামী লীগ ফের ক্ষমতায় আসলে ফাইভজি চালু হবে: সজীব ওয়া‌জেদ জয়

0
33

আওয়ামী লীগ সরকার আগামীবার ক্ষমতায় আসলে ফাইভজি চালু করবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযু‌ক্তি বিষয়ক উপ‌দেষ্টা সজীব ওয়া‌জেদ জয়। আজ বুধবার দুপুরে ফাইভজির পরীক্ষামূলক সংযোগ চালুর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জয় এমনটা জানান।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার তাদের দেওয়া থ্রিজির কথা রেখেছে। আমরা বলেছিলাম দেশে থ্রিজি নিয়ে আসব। কেউ বিশ্বাস করতে পারেনি বিষয়টি। কেউ বিশ্বাস করতে পারেনি বাংলাদেশে ভ্রমণের সময় তারা মোবাইলে ব্রডব্যান্ড ব্যবহার করবে বা ল্যাপটপে।’

‘ফাইভজি নিয়ে আমার লক্ষ্য হলো, বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে ফাইভজি চালু করবে বাংলাদেশ। আমি চাই বাংলাদেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাক। যদি দেশের মানুষ ভোট দিয়ে আমাদের আবারও ক্ষমতায় আনে তবে আমরা বাংলাদেশে ফাইভজি চালু করব’, বলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা।

সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, ‘আমার কিছু বদ অভ্যাস রয়েছে। যা আজকের অনুষ্ঠানের সঙ্গে সম্পর্কিত। আপনারা সবাই জানেন আমি টেকি মানুষ। আমি প্রযুক্তি পছন্দ করি। আমি প্রযুক্তি নিয়ে খেলতে ভালোবাসি। আমার যে বদ অভ্যাসটি রয়েছে তা হলো, যখন নতুন কোনো প্রযুক্তি আসে তখন সেটা আমি চাই। যখন নতুন মডেল আসে আমার সেটা চাই। যখন কোনো নতুন ফোন আসে আমি তখন তা কিনি। ইহা টেকি মানুষের প্রকৃতি।’

দেশে ফোরজি নিয়ে আশাব্যক্ত করে জয় বলেন, ‘আমি সবসময় অনলাইনে থাকি। সবকিছুই আমি অনলাইনে করি। আমার কাছে পার্সোনালি ইন্টারনেট কানেকশন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমি সবসময় ইন্টারনেটের কোয়ালিটি পরীক্ষা করি।

তিনি বলেন, ‘ফাইভজি নতুন টেকনোলজি। বাংলাদেশে ফোরজির যাত্রা শুরু হয়েছে। দেশে ফোরজি এখন বাস্তবতা। এখন আমরা শুধু ফোরজি নিয়ে নয়, ইতোমধ্যে ফাইভজি নিয়ে কথা বলা শুরু করেছি।’

বাংলাদেশে ইন্টারনেটের দাম অন্যান্য দেশের তুলনায় অনেক কম দাবি করে তিনি জানান, ইন্টারনেটের দামের দিক থেকে বাংলাদেশ অন্যান্য দেশের তুলনায় এগিয়ে। এসব ঘটেছে আওয়ামী লীগ সরকারের পরিকল্পনার কারণে এবং সরকারের পলিসির কারণে।

জয় বলেন, ‘এখনকার তরুণদের কাছ থেকে আমি যে অভিযোগটি সচরাচর পেয়ে থাকি, তা হলো ইন্টারনেটের দাম নিয়ে। কিন্তু তারা ভুলে গেছে ১০ বছর আগের কথা। সেই সময়ে ইন্টারনেটের দাম ছিল অনেক। এখন বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন টেকনোলজির দিক থেকে অনেক এগিয়ে।দেশে ৫ মাস আগে আমরা থ্রিজি চালু করেছিলাম।

জেলা বা উপজেলা পর্যন্ত পৌঁছাতে কিছুটা সময় লেগেছে। কিন্তু দেশে চার মাস আগে ফোরজি চালু করেছি আমরা। কিন্তু জুলাইয়ে আমরা উপজেলা পর্যায়ে ফোরজি পৌঁছে দিয়েছি।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here