সৌদি আরবের প্রতিক্রিয়া ‘ভয়ানক’ – বার্নি স্যান্ডার্স

0
49

বিশ্বজুড়ে মানবাধিকার হরণের বিরুদ্ধে প্রায় সবসময়ই বক্তৃতা-বিবৃতি দিয়ে আসছে কানাডা। সৌদি আরবে মানবাধিকারকর্মীদের আটকের ঘটনায়ও কানাডার দেওয়া বিবৃতিটি ছিল সেই ধারাবাহিকতারই অংশ। অন্যান্য বিবৃতিতে কানাডা যেসব ভাষা ব্যবহার করে, সৌদি আরবের বেলাতেও আলাদা কোনো ভাষা ব্যবহার করা হয়নি। অথচ কানাডার এই অাপাত সাদামাটা বিবৃতিতে তেলে-বেগুনে জ্বলে উঠল সৌদি আরব। তারা তিন-চারদিন ধরে কানাডার বিরুদ্ধে একের পর এক পদক্ষেপ নিয়ে যাচ্ছে।

শুক্রবার কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সৌদি মানবাধিকারকর্মী সামার বাদাউয়ির আটকে তারা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। সামার বাদাউয়িসহ সম্প্রতি আটক অন্য সব মানবাধিকারকর্মীর মুক্তি দিতে সৌদি আরবের প্রতি অাহ্বান জানায় উত্তর আমেরিকার দেশটি।

কানাডার এ আহ্বানকে ‘অভ্যন্তরীণ বিষয়ে বিদেশি হস্তক্ষেপ’ হিসেবে অভিহিত করে সৌদি সরকার সৌদি আরবে নিযুক্ত কানাডার রাষ্ট্রদূত ড্যানিশ হোরাককে বহিষ্কার করেছে। আর কানাডায় নিযুক্ত সৌদি রাষ্ট্রদূতকে দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। কানাডার সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ স্থগিত করা এবং সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থার টরন্টোগামী সব ফ্লাইট বাতিল কর হয়েছে।

উত্তপ্ত সৌদি আরব এতেই ক্ষান্ত হয়নি। তারা কানাডায় চিকিৎসারত নাগরিকদের ভিন্ন দেশে চিকিৎসার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। এমনকি নতুন করে চিকিৎসার জন্য কোনো রোগীকে কানাডায় পাঠাবে না বলেও ঘোষণা দেয় দেশটি।

এতসব পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শুধু এক বিবৃতিতে বলেছে, উদ্ভুত পরিস্থিতিতে তারা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। কিন্তু তারা অতীতের মতো ভবিষ্যতেও মানবাধিকারের পক্ষে কথা বলে যাবে। এদিকে মার্কিন সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স সৌদি আরবের প্রতিক্রিয়াকে ‘ভয়ানক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।