আইনগত ভিত্তি পেলেই ইভিএম ব্যবহার : সিইসি

0
47

আইনগত ভিত্তি পেলে এবং নির্বাচন কমিশনে (ইসি) থাকা ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ত্রুটি না থাকলে একাদশ জাতীয় সংসদ ইভিএম ব্যবহার করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা।

শনিবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ (টিওটি) এবং ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহারসংক্রান্ত প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিইসি এসব কথা বলেন। আগামী দুই থেকে আড়াই মাসের মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন হতে পারে বলেও মন্তব্য করেছেন কে এম নুরুল হুদা।

সিইসি নুরুল হুদা বলেন, ‘আমরা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছি। নির্বাচনের আর বেশিদিন নেই। হয়তো দুই থেকে আড়াই মাসের মধ্যে নির্বাচন সম্পন্ন হবে। এই প্রস্তুতির প্রথম পর্ব শুরু হলো এখান থেকে।’

ইভিএম বিষয়ে নুরুল হুদা বলেন, ‘আমাদের অবস্থান আগে যে রকম ছিল, এখনো সে রকম আছে। ইভিএমে যদি আপনারা সফল হন, আপনাদের যদি ইভিএম ব্যবহারের যোগ্যতা অর্জিত হয় এবং ইভিএম যদি আইনগত একটা ভিত্তি পায়, তখনই ইভিএম চালু করা হবে এবং যে ইভিএম আছে, সেগুলো যদি ব্যবহার উপযোগী হয়, কোনো ত্রুটি না থাকে, কেবল তখনই ইভিএম ব্যবহার করা হবে।’

নুরুল হুদা জানিয়েছেন, নির্বাচনি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ ও ইভিএম ব্যবহারসংক্রান্ত প্রশিক্ষণের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হলো। জাতীয় নির্বাচনি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষকদের উদ্দেশে নুরুল হুদা বলেন, ‘টিওটি একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া। এটা সবসময় হয়ে থাকে। কারণ হাজার হাজার লোক প্রশিক্ষণ দিতে হবে। ভালোভাবে, সুচারুভাবে প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য যে প্রস্তুতি, সে প্রস্তুতির প্রথম পর্বে আপনারা উপস্থিত হয়েছেন।’

নির্বাচন কমিশন থেকে নিজ এলাকায় গিয়ে প্রশিক্ষকদের অনেক কাজ বেড়ে যাবে, সেই দায়িত্ব তাদেরকে পালন করার পরামর্শ দেন সিইসি।