বিএনপি’র ৩০ জন নেতাকর্মীর জামিন নামঞ্জুর করেছে শরীয়তপুরের আদালত

0
188

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি অনুষ্ঠানে যুবলীগের হামলার ঘটনায় ৭৯ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে বাদী হয়ে মামলা করে যুবলীগ নেতা আমীর আলী সরদার। এ মামলায় ৩৪ জন নেতাকর্মী আইনজীবীর মাধ্যমে স্বেচ্ছায় হাজির হয়ে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন আবেদন করেন। আদালত ৪ জন নেতাকর্মীকে বয়স বিবেচনায় জামিন দিয়ে অপর ৩০ জনকে হাজতে পাঠিয়েছেন। সোমবার দুপুর ১টায় আসামীদের উপস্থিতিতে জামিন শুনানী শুরু হয়। দীর্ঘ ৩০ মিনিট শুনানীর পর অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন এ আদেশ প্রদান করেন।

জামিনের পক্ষে শুনানী করেন এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম কাশেম, এডভোকেট মৃধা নজরুল কবির, এডভোকেট লুৎফর রহমান ঢালী, এডভোকেট আবু সাঈদ, এডভোকেট দেলোয়ার হোসেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন কোর্ট পুলিশ উপ-পরিদর্শক দবির উদ্দিন, এডভোকেট তাজুল ইসলাম ও এডভোকেট পারভেজ রহমান জন।

হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মাহবুব মোর্শেদ টিপু, যুব বিষয়ক সম্পাদক মামুন খান, বিএনপি নেতা হাকিম সরদার, মান্নান সরদার, মো. খলিলুর রহমান খাঁ, মোক্তাার হোসেন সরদার, রাকিব মোল্যা, আ. জব্বার ফকির, হুমাউন মাদবর, আমিন উদ্দিন বেপারী, মোফাজ্জেল মোল্যা, পারভেজ মোল্যা, শাহাদাত সরদার, জহির ছৈয়াল, মধু মুন্সী, মেহেদী মাদবর, চান মিয়া তালুকদার, রুবেল বেপারী, জাহাঙ্গীর বেপারী, আয়নাল বেপারী, মো.বিল্লাল দর্জী, সুমন খান, রোমান সরদার, জামাল ঢালী, রাসেল সরদার, নান্নু খান, খোকন মোল্যা, বাবুল মাদবর, আকবর মাদবর, রুবেল মোল্যা, আক্তার মাঝি, আ.রব ঢালী সহ ৩৪ জন। এদের মধ্য থেকে আ. রব ঢালী, খলিলুর রহমান খান, আমিন উদ্দিন বেপারী ও চান মিয়া তালুকদারকে আগামী ধার্য্য তারিখ পর্যন্ত জামিন দিয়েছেন আদালত।

আসামী পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবী এডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম কাশেম বলেন, সারাদেশে কোথাও আইনের শাসন নাই। আইনের শাসন প্রয়োগ থাকলে আইনগত ভাবে এ আসামীরা জামিনের হকদার। আইনের শাসন না থাকায় ন্যায় বিচার ভূলুন্ঠিত। আমার আসামীদের বেলাও তাই হয়েছে। আমি উচ্চ আদালতে যাব। আমি আশাবাদী সেখানে ন্যায় বিচার পাব।

উল্লেখ্য, ১ সেপ্টেম্বর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কালু সরদারের বাড়িতে বিএনপির প্রতিষ্ঠা বাষির্কি পালন অনুষ্ঠানে যুবলীগ হামলা চালায়। এ সময় উভয় পক্ষের একাধিক নেতাকর্মী জখম প্রাপ্ত হয়। এ ঘটনায় যুবলীগ নেতা আমির আলী সরদার বাদী হয়ে জেলা বিএনপির সভাপতি শফিকুর রহমান কিরণ সহ ৭৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। সেই মামলায় আজ ৩০ জন নেতাকর্মীকে হাজতে নেয় আদালত।