স্বর্ণঘোষে ৩০উর্ধব ফুটবল খেলায় লাল দলের বিজয়

0
40

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুর পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড স্বর্ণঘোষে ৩০ বছর পেরিয়ে যাওয়া বয়স্কদের মধ্যে প্রিতি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩০ উর্ধদের মধ্যে লাল দল ও নীল দলে বিভক্ত হয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকাল ৪টায় স্বর্ণঘোষ ব্রাদার্স ইউনিয়ন ক্লাব মাঠে এ খেলা অনুষ্ঠিত হয়। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে লাল দল আকর্শণীয় ভাবে দু’টি গোল করে নীল দলকে পরাজিত করে। খেলা পরিচালনা করেন জেলা ক্রিয়া সংস্থার প্রশিক্ষক সেলিম শিকদার।

নীল দল গোল প্রতিশোধের চ্যালেঞ্জে সফলাতা পায়নি। লাল দলের থেকে পাওয়া ২ গোলের ভার কাঁধে নিয়েই খেলার মাঠ ত্যাগ করেন নীল দল। অতিরিক্ত বয়সের ভারে নুহ্য কতিপয় খেলোয়ারের দম ফুরিয়ে যাওয়ায় এ পরাজয় হয়েছে বলে অনেকেই ধারণা করছে। তবুও মনবল হারায়নি নীল দল। আবার খেলার সুযোগ পেলে হয়তো জয় ছিনিয়ে নিয়ে পরাজয়ের জবাব দিবেন তারা।

লাল দলের অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন এনামুল হাওলাদার। একই সাথে মাঝ মাঠে তার ব্যাপক দাপট লক্ষ্য করা গেছে। মাঝ মাঠে রাজত্ব করেছেন কাউন্সিলর রশিদ সরদার, অনিমেষ দাস, হুমায়ুন হাওলাদার। রক্ষণ ভাগে খেলেন খবির শেখ, খোরশেদ আলম বাবুল, আনোয়ার হোসেন ফকির। অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে সম্পূর্ণ মাঠ দখলে রাখে আনোয়ার হোসেন মির্জা, খবির হোসেন শিকদার, লিটন শিকদার, কবির হোসেন শিকদার, জুয়েল শিকদার, খোকন শিকদার ও জাকির তালুকদার।

নীল দলে অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সামাদ তালুকদার। মাঝ মাঠে খেলেন সাবেক কাউন্সিলর খলিল খান, আহছান সরদার, জামাল সরদার, আনোয়ার খান, সুমন খান, মুরাদ হাওলাদার। রক্ষণ ভাগে খেলে বিএম নাসির উদ্দিন, ইলিয়াস মকদম, নাসির তালুকদার, মজিবর রহমান। গোল রক্ষককের দায়িত্বে ছিল টুলু শিকদার।

দর্শক মতামতের ভিত্তিতে জানাগেছে, লাল দলের চাইতে নীল দলে ভালো খেলোয়ার বেশী ছিল। সমন্বয় ও সহনশীলতার অভাবে নীল দলের পরাজয় হয়েছে। তবে গোল রক্ষকের বিচক্ষণতার কারনে অনেক গোল রক্ষা পেয়েছে নীল দল। নয়তো নীল দলের ঝুলিতে গোলের সংখ্যা আরও বেড়ে যেতো। নীল দল তেমন কোন আক্রমনে যেতে পারেনি। যে সকল আক্রমন করেছে তাও দূর্বল ছিল।

দর্শক আরও জানায়, লাল দলের লং কিক ও প্রতিপক্ষকে গার্ড দিয়ে খেলে ভাল করেছে। লাল দলের আক্রমনের সংখ্যা বেশী ও শক্তিশালী ছিল। এনামুল হাওলাদার যে গোল করেছে তা ছিল আকর্ষণীয়। রশিদ সরদার প্লানটি কিকে যে গোল করেছে তাও দর্শক নন্দিত ছিল। মাঠের চার পাশে দাড়িয়ে সকল বয়সী নারী-পুরুষ খেলা উপভোগ করেছে। আক্রমনের সাথে সাথে বাদক দল বাদ্য বাজিয়ে আনন্দ দিয়েছে। স্বর্ণঘোষ মাঠে এ যেন নতুন কিছু। সব মিলিয়ে আমরা ভালই উপভোগ করেছি। মাঝে মধ্যে এমন খেলাধুলা হলে নতুন খেলোয়ারের সৃষ্টি হবে বলে দর্শক ধারণা করছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here