ব্যাটিং ব্যর্থতার পর অনুজ্জ্বল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল !

0
22

প্রথমবারের মতো ভারতকে হারিয়ে এশিয়া কাপ শুরু করে ছিল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল । এরপর আয়ার ল্যান্ডের মাটিতে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয় ও নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব জিতে দুর্দান্ত ফর্মে ছিল সালমা খাতুনের দল।

উইন্ডিজে অনুষ্ঠিতব্য নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতির জন্য আয়োজন করা হয়েছিল পাকিস্তানের বিপক্ষে চার ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ। কিন্তু এই সিরিজে যেন মুদ্রার উল্টো পিঠই দেখল বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। ব্যাটিং ব্যর্থতার পর অনুজ্জ্বল বোলিংয়ে চতুর্থ ও শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৭ উইকেটে হেরেছে সালমা-জাহানারারা।

কক্সবাজারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে এদিন আগে ব্যাট করে ৭৭ রানে অলআউট হয় বাংলাদেশ। জবাবে ৩১ বল বাকি থাকতেই ৩ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় পাকিস্তান।

এই জয়ের ফলে চার ম্যাচের সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতল জাভেরিয়া খানের দল। এর আগে মাঠ খেলার অনুপযোগী থাকায় পরিত্যক্ত হয় প্রথম সিরিজের টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ৫৮ রানে জেতে পাকিস্তান। তৃতীয় ম্যাচ জেতে ৭ উইকেটে।

শনিবার ৭৮ রানের ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে যেন তর সইছিল না পাকিস্তানি ব্যাটাসম্যানদের। ৩ উইকেট হারিয়ে ১৪.৫ ওভারেই জয় তুলে নেয় তারা। এ ছাড়া ছোট পুঁজি নিয়ে লড়াইয়ের জন্য যে বোলিং-ফিল্ডিং প্রয়োজন ছিল, তাও করতে পারেনি সালমার দল।

মাত্র ১২ রানে পাকিস্তানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙলেও দ্বিতীয় উইকেটে নাহিদা আক্তারের সঙ্গে ৩৪ ও তৃতীয় উইকেটে মুনিবা আলির সঙ্গে ২৭ রানের জুটি গড়ে দলকে জয়ের খুব কাছাকাছি নিয়ে যান অধিনায়ক জাভেরিয়া। ২৯ বলে ৫ চারে ৩৬ রান আসে তার ব্যাট থেকে। দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়া মুনিবা আলি অপরাজিত থাকেন ১৮ রানে।
বাংলাদেশের পক্ষে একটি করে উইকেট নেন সালমা খাতুন, রুমানা আহমেদ ও খাদিজা তুল কুবরা।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় বাংলাদেশ। কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পেরেছিলেন কেবল রুমানা আহমেদ। ৩১ বলে ২ চারে ২৪ রান করেন এই অলরাউন্ডার। এ ছাড়া দুই অঙ্কের রান ছুঁয়েছিলেন কেবল ফাহিমা খাতুন। ১৫ বলে ১৪ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ব্যাটিং ব্যর্থতায় একদম শেষ বলে ৭৭ রানেই থেমে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here