দরজা বন্ধ করে আমার সঙ্গে জোরজবরদস্তি-নাতাশা হেমরজনী

0
35

নানা পাটেকার, কৈলাশ খের এরপর জনপ্রিয় মডেল জুলফি সৈয়দ৷ যৌন হেনস্থার অভিযোগে একে একে নাম উঠে আসছে সকলের৷ কৈলাশ খেরের বিরুদ্ধে যে ফোটো জার্নালিস্ট নাতাশা হেমরজনী যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন তিনিই জুলফি সৈয়দের বিরুদ্ধেও হেনস্থার অভিযোগ এনেছেন৷

এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে ফোটো জার্নালিস্ট হিসেবে কাজ করতেন নাতাশা৷ যদিও কৈলাশের বিরুদ্ধে করা অভিযোগের সঙ্গে জুলফির বিরুদ্ধে করা অভিযোগের আকাশ পাতাল তফাত৷ কৈলাশ খেরকে নিয়ে করা ট্যুইটের পরই তিনি মডেল জুলফি সৈয়দের যৌন হেনস্থার প্রসঙ্গ তোলেন৷ একবার জাহাজে নাতাশা এবং তাঁর সহকর্মী একটি অ্যাসাইনমেন্টে যায়৷ সেখানে বেশ কয়েকজন মডেল উপস্থিত ছিলেন৷

পাশাপাশি অন্যান্য মিডিয়া এবং ক্যামেরাম্যানরাও ছিলেন৷ ইভেন্টে জুলফি এবং নাতাশার বেশ ভালই বন্ধুত্ব হয়ে যায়৷ যার পর তাঁরা দু’জনে ডেকে বসে কথা বলছিলেন৷ অন্যান্য মডেল এবং নাতাশার সহকর্মীরা নিজেদের রুমে চলে যায়৷ সেই সময় জাহাজের ডেকে কেবলমাত্র নাতাশা এবং জুলফি ছিলেন৷

নাতাশা লিখেছেন, “ডেকে আমরা দু’জন গল্প করার আগে আমি আমার ফোন জুলফির রুমেই চার্জে বসিয়েছিলাম৷ গল্প করতে করতে আমরা কিছু ঘনিষ্ঠ মুহূর্ত শেয়ার করি৷ কিন্তু কিস করার পর আমি সিদ্ধান্ত নিই যে আমি চলে যাব৷ বেশি দূর ব্যাপারটাকে নিয়ে যাব না৷ সেটাই জুলফিকে জানিয়ে আমি ঘুমোতে চলে যাই৷ হঠাৎ মনে পড়ল যে আমার ফোনটা জুলফির রুমে চার্জে রয়েছে৷ সেটা নেওয়ার জন্য ওর সঙ্গে ওর রুমে যাই৷ ফোন নিয়ে বেরোতে গিয়ে দেখি জুলফি ঘরের দরজা বন্ধ করে দিয়েছে৷ আমি ওকে জিজ্ঞেস করায় ও বলল, ‘তুমি শুরু ফোনটা নেওয়ার জন্য আমার রুমে আসোনি আমি জানি৷’”

“আবারও ওকে বলি যে না আমি ফোন নিতেই এসেছি৷ দরজাটা খুলতেই জুলফি আমার সঙ্গে জোরজবরদস্তি করতে শুরু করে৷ আমার বারণ করার পরও ও শোনেনি৷ কোরিডোরে কেউ ছিল না৷ কেউ আমার চিৎকার শুনতে পায়নি৷ হঠাৎ আমার মাথায় আসে নিজেকে এইভাবে ছাড়ানো যাবে না৷ আমি ওকে বিশ্বাস আনানোর চেষ্টা করি যে আমিও ইন্টারেস্টেড৷ তারপরই ও জোরজবরদস্তি করা বন্ধ করল৷ সেই ফাঁকে আমি দরজা খুলে সেখান থেকে পালিয়ে যাই৷ আমার সহকর্মীর রুমে গিয়ে সবটা জানাই৷ আমার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে আইনি অভিযোগ দায়ের করব৷”

এরপর নাতাশার সাহস হয়নি অভিযোগ দায়ের করার৷ কারণ তাঁর মতে, সকলে তাঁকেই দোষারোপ করত৷ সবাই বলত যে জুলফিকে তিনিই অ্যাটেনশন দিয়েছেন৷ যদিও নাতাশা এও ট্যুইট করেছেন যে পরদিন সকালে জুলফি তাঁর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন৷ জুলফি ভেবেছিলেন এতে নাতাশারও সম্মতি রয়েছে, তাই প্রথমদিকে বুঝতে পারেননি

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here