সিলেটে মুষলধারে বৃষ্টি বিপাকে ধর্মপ্রান মুসল্লি

0
39

সিলেট প্রতিনিধি : সিলেটে গত তিনদিন ধরে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টিতে জনজীবন অতিষ্ট। তার উপর আজ শুক্রবার মুষলধারে বৃষ্টি হওয়ায় মহা বিপাকে পড়েছেন ধর্মপ্রান মুসল্লি ও সাধারন মানুষ। তবে দক্ষিণাঞ্চলে অতি ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানিয়েছে সিলেটের আবহাওয়া অফিস।

এদিকে অনুমানের চেয়ে প্রায় তিনগুণ শক্তিতে ভারতের উড়িষ্যা ও অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে আঘাত হানে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’। তবে ঝড়টি ক্রমশ দুর্বল হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হওয়ায় বাংলাদেশের কোথাও কোথাও ভারী ও মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হয়েছে। আর তারই প্রভাবে সিলেট নগরীতে শুক্রবার (১২ অক্টোবর) সকাল থেকেই শুরু হয়েছে মুষলধারে বৃষ্টি।

গভীর নিম্নচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা ও সমুদ্র বন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। চট্টগ্রাম,কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

সিলেট আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাষে বলা হয়েছে, সিলেট, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় এবং রংপুর বিভাগের অনেক জায়গায় অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ভারতের উড়িষ্যা ও সেই সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় তিতলি সামান্য উত্তরপূর্ব দিকে এগিয়ে দুর্বল হয়ে পড়েছে। ঝড়টি এখন একই এলাকায় নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে।

শুক্রবার সকাল ৬টায় ভারতের উড়িষ্যা ও সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকায় অবস্থান করছিল তিতলি। এটি আরও উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমে দুর্বল হয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কার কথা জানিয়েছে সিলেটের আবহাওয়া অফিস।