সাটুরিয়ায়, অর্থ সংকটে চিকিৎসার অভাবে পঁচন ধরেছে আবিরনের পায়ে

0
151

আব্দুস ছালাম সফিক ঃ মোসা. আবিরন বিবি। বয়স প্রায় ষাটের কাছাকাছি। থাকেন জরাজীর্ণ একটি বাড়িতে। প্রায় চল্লিশ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল পার্শ্ববর্তী মওরা গ্রামের আব্দুল লতিফের সাথে। বিয়ের পাঁচ বছরের মাথায় আব্দুল লতিফ দ্বিতীয় বিয়ে করে অন্যত্র চলে যায়।

পরবর্তীতে স্বামী আব্দুল লতিফ আবিরন বিবির আর কোন খোঁজ নেননি। মো. হাবিবুর রহমান (৩৫) নামে একজন ছেলে আছে তাঁর। হাবিবুর বিয়ে করে মানিকগঞ্জ শহরে অটোরিক্সা চালায়। সেও তাঁর কোন খোঁজ নেয়না। বয়সের ভারে শরীরে বিভিন্ন রোগ বাসা বেঁধেছে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পেয়েছে। বেড়েছে ডায়াবেটিস আর হার্টের সমস্যা। একা চলতে পারেনা।

ডান পায়ের চারটি আঙ্গুলে পঁচন ধরে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে চারদিকে। মাঝে মাঝে পায়ের ক্ষতস্থানের পোকাগুলো কুটকুট করে কামড়ায়। ঠিকমত চিকিৎসাও হচ্ছে না। আমারতো আর কেউ নেই। কথাগুলো বলতে বলতেই কেঁদে ফেলেন মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়া উপজেলার সাভার গ্রামের আবিরন বিবি।

জানাযায়, উপজেলার সাভার গ্রামের আবিরন বিবির প্রায় বিশ বছর যাবত এ রোগে ভূগছেন। আর্থিক সংকটের কারণে তাঁর চিকিৎসা করাতে পারছেনা তিনি। প্রতিবেশীরা মাঝে মাঝে খাবার দেয়, তাই খেয়েই তিনি বেঁচে থাকেন। পাঁচ শতাংশ জামিতে একটি মাত্র ভাঙ্গাচুরা জরাজীর্ণ একটি ঘরে তিনি থাকেন। স্থানীয়রা জানায়, আবিরনকে অর্থ সংকটের কারণে উন্নত চিকিৎসা করা যাচ্ছে না। তাকে চিকিৎসা করাতে প্রচুর টাকার প্রয়োজন।

উপজেলার আগসাভার এলাকার ব্যবসায়ী মো. মোশারফ হোসেন জানান, আবিরনকে দ্রুত চিকিৎসা করা প্রয়োজন।
এ বিষয়ে ১নং বরাইদ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. হারুন-অর-রশিদ জানান, তাকে বিভিন্ন সময়ে সহযোগিতা করা হয়েছে। তাঁর ব্যাপারে সমাজসেবা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে অবহিত করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here