বিপিএলে যারা দল পেলেন না

0
43

ড্রাফট থেকে বেশকিছু তরুণ খেলোয়াড় এবার প্রথম দফায় দল পেয়েছেন। আবার দেশ-বিদেশের বেশকিছু বড় নাম আছে, যারা বিপিএলে খেলার জন্য ড্রাফটে নাম পাঠিয়েছিলেন, কিন্তু তাদের প্রতি কোনো দল আগ্রহ দেখায়নি।

বিপিএলের ষষ্ট আসরের সময় পাকিস্তান, ওয়েস্ট ইন্ডিজের সিরিজ থাকায় এই দুই দেশের খেলোয়াড় কিনতে বেশ চিন্তাভাবনা করেছেন ফ্রাঞ্চাইজির কর্মকর্তারা। অবাক করার বিষয় হল ড্যারেন ব্রাভোর মতো ক্রিকেটার জাতীয় দল থেকে অবসর নেয়ার পরও রোববার তাকে কোনো দল নেয়নি। ব্রাভো কয়েকদিন আগে অবসর নেয়ার সময় জানান, তিনি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের টি-টুয়েন্টি লিগগুলোতে খেলা চালিয়ে যেতে চান।

রোববার ঢাকার একটি হোটেলে ড্রাফট থেকে ক্রিকেটার নির্বাচন করে সাতটি ফ্রাঞ্চাইজি।

এবার ৩৬৫ জন বিদেশি খেলোয়াড় বিপিএলে খেলার জন্য বিসিবির কাছে নাম পাঠান। এর বাইরে কয়েকজনকে নিলামের আগে নিয়ে নেয় দলগুলো। খেলোয়াড় নেয়ার জন্য এখনো সময় আছে ২৪ ঘণ্টা। ড্রাফটে নাম পাঠাননি এমন কাউকে এই সময়ে আর দলে নেয়া যাবে না।

দল না পাওয়া তারকা ক্রিকেটারদের মধ্যে আরও আছেন ইংল্যান্ডের লুক রাইট, পাকিস্তানের ইমাম-উল হক, মোহাম্মদ হাফিজ, শ্রীলঙ্কার উপুল থারাঙ্গা, অলরাউন্ডার মারলন স্যামুয়েলস এবং ড্যারেন সামি। আফগানিস্তানের রশিদ খান এবার ড্রাফটে নিজের নাম পাঠাননি। নিলামের আগেও তাকে কেউ নেয়নি। তার মানে এই আসরে তাকে আর দেখা যাচ্ছে না।

স্থানীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে দল পাননি শাহরিয়ার নাফীসের মতো ওপেনার। তিনি ছিলেন ‘বি’ ক্যাটাগরিতে। এই ক্যাটাগরির খেলোয়াড়ের নির্ধারিত দাম ১৮ লাখ টাকা। ঘরোয়া ক্রিকেটের অন্যতম সেরা সফল দুই ক্রিকেটার আব্দুর রাজ্জাক এবং তুষার ইমরানও দল পাননি। দল পাননি তরুণ রিস্টস্পিনার জুবায়ের হোসেন লিখন এবং ‘ছক্কা নাঈম’ বলে পরিচিত অলরাউন্ডার নাঈম ইসলামও।

#বাংলাটপনিউজ/আরিফ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here