মা‌নিকগ‌ঞ্জে তুচ্ছ কারণে স্কুলছাত্রের মাথা ফাটালো পুলিশ

0
141

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপ‌জেলায় সোমবার তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মো. আলাউদ্দিন নামের এক স্কুলছাত্রের মাথা ফাটিয়েছেন দৌলতপুর থানার এক কনস্টেবল।। আহত অবস্থায় স্কুলছাত্রের বন্ধুরা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। আলাউদ্দিন দৌলতপুর পিএস মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ভোকেশনাল শাখার নবম শ্রেণির ছাত্র ও টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার কামটিয়া এলাকার সানোয়ার শেখের ছেলে।

আলাউদ্দিন ও তার বন্ধু শামীম হোসেন জানান, স্কুলে ধর্ম বিষয়ে ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন আলাউদ্দিন। উপজেলার বাসস্ট্যান্ড মসজিদ মার্কেট এলাকায় আসার পরে রিকশাকে সাইড দিতে গিয়ে হঠাৎ পুলিশ কনস্টেবল জুয়েলের মোটরসাই‌কে‌লের সঙ্গে আলাউ‌দ্দি‌নের মোটর সাইকেলের বাম্পারের ধাক্কা লাগে।

এ সময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই আলাউদ্দিনকে জুয়েল মাথায় এলোপাতাড়ি কিল ঘুষি মারতে থাকলে মাথা ফেটে রক্ত বের হতে থাকে। পরে বন্ধুরা স্কুলছাত্র আলাউদ্দিনকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য জুয়েল রানা বলেন, আলাউদ্দিনের মোটরসাইকেল আমার মোটরসাইকেলের সাথে ধাক্কা দিলে বাম্পার বাকা হয়ে যায়। তাই আমি উত্তেজিত হয়ে তাকে কয়েকটি থাপ্পর দিই। হাতে চাবি ছিল যে কারণে ছেলেটির মাথা ফেটে রক্ত বের হয়েছে। এজন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করেছি ওর কাছে।”

দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মালেক ভাণ্ডারী বলেন, “পুলিশ জনগণের রক্ষক। আর সে যদি এরকম কাণ্ড করে তাহলে সাধারণ মানুষ যাবে কোথায়।

ছেলেটির বাবা ও আমি মিলে থানায় বিষয়টি ওসিকে অবহিত করলে তিনি এসআই আব্দুল হাইয়ের মাধ্যমে মীমাংসা করে দেন।”