প্রার্থিতা বহালে দুই দিনে আপিল ৩১৮

0
15

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থিতা বহাল রাখতে দুই দিনে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) ৩১৮ জন মনোনয়ন বাতিলরা আপিল করেছেন।

প্রথম দিন ৩ ডিসেম্বর ৮৪ জন ও দ্বিতীয় দিন ৪ ডিসেম্বর আপিল করেছেন ২৩৪ জন। দ্বিতীয় দিনে আপিলকারীদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকায় ৬৮, চট্টগ্রামে ৫৬, খুলনায় ১৮, সিলেটে ১৫, বরিশালে ১২, রাজশাহীতে ২১, রংপুরে ২৮ ও ময়মনসিংহে ১৬ জন।

এক শতাংশ ভোটার না থাকা, ত্রুটিপূর্ণ মনোনয়ন, লাভজনক পদে থাকা, হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকা, আয়কর রিটার্ন দাখিল না করা, ঋণ খেলাপি হওয়া, দণ্ডপ্রাপ্ত হওয়াসহ বিভিন্ন কারণে তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

ইসি সূত্রে জানা যায়, রংপুরে ৯১টি, রাজশাহীতে ৯৬, খুলনায় ৯০, বরিশালে ৩৮, ময়মনসিংহে ৬২, ঢাকায় ১৯২টি, সিলেটে ৪৪টি এবং চট্টগ্রামে ১৭৩টি মনোনয়নপত্র বাতিল করে এই সংবিধানিক প্রতিষ্ঠান।

রংপুরে বৈধ মনোনয়নের সংখ্যা ২৬২টি, রাজশাহীতে ২৫৯টি, খুলনায় ২৬১টি, বরিশালে ১৪৫টি, ময়মনসিংহে ১৬৯টি, ঢাকায় ৫৩৯টি, সিলেটে ১৪০টি এবং চট্টগ্রামে ৫০৪টি।

জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ছিল ২৮ নভেম্বর পর্যন্ত ৩ হাজার ৬৫টি মনোনয়নপত্র জমা পড়ে।

গত ২ ডিসেম্বর যাচাই-বাছাইয়ের করে ৭৮৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করে রিটার্নিং কর্মকর্তারা। এরপর ৩ ডিসেম্বর থেকে মনোনয়নপত্র ফিরে পেতে আপিল শুরু করেন অবৈধ হওয়া প্রার্থীরা।

এ দিকে মনোনয়ন বাতিলে এগিয়ে আছে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা। ৩৮৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়। নির্বাচনে ৪৯৮ জন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে বর্তমানে বৈধ প্রার্থী রয়েছেন ১১৪ জন।

এই তালিকায় দ্বিতীয়তেই রয়েছে বিএনপি। তাদের মনোনয়ন বাতিলের সংখ্যা ১৪১ জন। ২৮ নভেম্বর ২৯৫টি আসনে বিএনপির ৬৯৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এর মধ্যে মনোনয়ন বাতিলের ফলে বিএনপির পাঁচটি আসনে বর্তমানে কোনো প্রার্থী নেই। এর আগে ৫টি আসনে দলটির কেউ মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি। সব মিলিয়ে ১০টি আসনে বিএনপির প্রার্থী নেই।

অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে ৩ জনের। এ নির্বাচনে ২৬৪ আসনে ২৮১ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রার্থী হয়েছিলেন। তবে তিনজনের প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় বর্তমানে ৩৯টি আসনে দলটির প্রার্থী নেই।

সব মিলিয়ে মনোনয়ন বাতিলের পর আসন্ন নির্বাচনে বর্তমানে আওয়ামী লীগের বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭৮ জনে এবং বিএনপির ৫৫৫ জন।

এ দিকে প্রার্থিতা বহাল রাখতে মনোনয়ন বাতিলদের আপিলের সুযোগের শেষ দিন আজ ৫ ডিসেম্বর। এরপর ৬, ৭ ও ৮ ডিসেম্বর শুনানির মাধ্যমে তা নিষ্পত্তি করবে ইসি। ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় নির্বাচনের ভোট হবে।