জাজিরায় স্থানীয় প্রভাব বিস্তার নিয়ে মারামারি !

0
38

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ জাজিরা পৌরসভার ফকির মাহমুদ আকন কান্দি গ্রামে স্থানীয় প্রভাব বিস্তার নিয়ে দ’ুপক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীর ঢালী (৪০) নামে একজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ রয়েছে। ঘটনার পর প্রতিপক্ষের ঘর ভাংচুর, জমির ফসল লুট ও বসত ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ভিকটিম জাহাঙ্গীর ঢালীর পরিবারের বিরুদ্ধে। ভিকটিম জাহাঙ্গীর ঢালীকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শরফত উল্লাহকে প্রধান আসামী করে ভিকটিমের বড় ভাই হারুন ঢালী বাদী হয়ে জাজিরা থানায় অভিযোগ করেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, একই বাড়িতে বসবাস করেও পূর্বের থেকেই হাতেম ঢালী ও সিকিম আলী ঢালীর পরিবারের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছিল। গত ১৬ ডিসেম্বর সকালে হাতেম ঢালী তার ছেলে মিলন, মাহবুব ও জামাতা আলমগীরকে নিয়ে বাড়ির পার্শ্ববর্তী মরিচ ক্ষেতে পানি দিতে যায়। পানির পাইপ জমিতে নেয়ার জন্য হাতেম ঢালীর ছেলে মাহবুব ইরি ব্লকে পানি সরবরাহ করার ড্রেন ভাংতে চেষ্টা করে। তখন ইরি ব্লকের ম্যানেজার হিসেবে সিকিম আলী ঢালীর ছেলে জাহাঙ্গীর ঢালী ড্রেন ভাংতে বাঁধা প্রদান করে। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

এক পর্যায়ে হাতেম ঢালীর ছেলেরা জাহাঙ্গীর ঢালীর মাথায় লোহার শাবল দিয়ে বাড়ি মারে। এতে জাহাঙ্গীর গুরুতর আতহ হয়। পরবর্তীতে সিকিম আলী ঢালীর ছেলেরা হাতেম ঢালীর বসত বাড়ির ঘর, টয়লেট ভাংচুর করে। জমির ফসল ও নারকেল গাছ থেকে ডাব নারকেল তুলে নেয় এবং বসত ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এ বিষয়ে সিকিম আলী ঢালীর ছেলে হারুন ঢালী বাদী হয়ে জাজিরা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনার পর থেকে হাতেম ঢালীসহ তার ছেলেরা ও জামাত বাড়ি থাকতে পারছে না।

এ বিষয়ে স্থানীয় মুরব্বি ইনছান ঢালী বলেন, আমার বংশের মধ্যে কোন বিরোধ ছিল না। কয়েক বছর পূর্বে বিরোধের সৃষ্ঠি হয়। সেই থেকেই একের পর এক ঘটনা ঘটেই চলছে। গত রোববার উভয় পক্ষ একটা সামান্য ঘটনা কেন্দ্র করে মারামারি করেছে। এ বিষয়ে থানায় মামলা হয়েছে। আহত জাহাঙ্গীরের লোকজন হাতেম ঢালীর বাড়িতে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে। পরে হাতেম ঢালীর লোকজন আমার ও সিকিম আলী ঢালীর জমির মরিচ গাছ কেঁটে ফেলেছে।

হাতেম ঢালীর মেয়ে তাহমিনা বলেন, আমার বাবা সহজ সরল মানুষ। কারণে অকারণে সিকিম আলী ঢালীর ছেলেরা আমার বাবাকে মারধর করতো। গত রোববার আমার বাবা ও ভাইরা মরিচ ক্ষেতে পানি দেয়ার জন্য যায়। পানির পাইপ নেয়ার জন্য ড্রেনের ইট সরাইতে থাকে। তখন জাহাঙ্গীর ঢালী আমার ভাইদের মারধর করে। আমার ভাইও জাহাঙ্গীরকে মারে।

পরবর্তীতে সিকিম আলী ঢালীর লোকজন আমাদের বাড়িতে এসে ঘর ভাংচুর করে বসত ঘরে তালা ঝুলিয়ে দেয়। আমরা ঘরে থাকতে পারছি না। আমাদের টয়লেটের দরজা ভেঙ্গে ফেলেছে। আমার টয়লেটে গেলে টয়লেটের মধ্যে টর্চলাইট মারে। আমাদের জমির ফসল ও গাছ থেকে নারকেল পেড়ে নিয়ে গেছে। মামলা ও পুলিশের ভয়ে আমার পিতা, ভাই ও স্বামী বাড়ি আসতে পারছে না।

জাজিরা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, বাদীল অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করা হয়েছে। ঘটনার সত্যতা থাকায় মামলা হয়েছে।