ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরি করাই লক্ষ্য: প্রধানমন্ত্রী

0
38

দুর্নীতির মাধ্যমে নিজেদের জীবনমানের উন্নয়ন নয়, বরং ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরি করে দেশের অগ্রগতি নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই আওয়ামী লীগ কাজ করে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘শান্তি ও সমৃদ্ধির পথে বাংলাদেশ’ শীর্ষক এক ব্যবসায়ী সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা দিতে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

শেখ হাসিনা বলেন, কী পেলাম, বা কী পেলাম না, সেটা নিয়ে আমি ভাবি না। আমি চিন্তা করি বাংলাদেশের মানুষের জন্য কী করে গেলাম, কী রেখে গেলাম। কীভাবে বাংলাদেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়ন হয়, সেদিকেই লক্ষ্য রাখা আমাদের কাজ।

দেশের সামগ্রিক অগ্রগতির চিত্র তুলে ধরে শেখ হাসিনা আরও বলেন, আমরা অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে আজ বিশ্বের কাছে রোল মডেল। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, শিল্প উন্নয়ন, রফতানি, রেমিট্যান্স, বিনিয়োগ বৃদ্ধিসহ শিক্ষা ও গ্রামীণ জনগণের সচ্ছলতা বাড়াতে আওয়ামী লীগ সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এজন্য যা যা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া দরকার, আমরা তাই করছি। আমরা চাই বাংলাদেশ হবে একটি শান্তিপূর্ণ দেশ।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন হবে। জনগণ তাদের পছন্দের সরকারকে ভোটের মাধ্যমে বেছে নেবে। আমরা চাই জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করুক। যেনতেনভাবে নয়, জনগণের ভোটেই আবার ক্ষমতায় আসতে চাই। নির্বাচনে যেন শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় থাকে সেজন্য সবার সাহায্য চাই।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে তিনি আরো বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ছাড়া কোনো দেশই উন্নতি করতে পারে না। আর তা সম্প্রসারণের লক্ষ্যেই সরকার কাজ করছে। সরকারের এই ধারাবাহিক উন্নয়নে ব্যবসায়ীদের অংশগ্রহণ গুরুত্বপূর্ণ। সেই সঙ্গে দেশের সার্বিক উন্নয়নে সরকারেরও ধাবাহিকতা দরকার বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই নেতারা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারো নৌকাকে বিজয়ী করার আহ্বান জানান।

এতে অন্যান্যর মধ্যে এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, প্রবীণ ব্যবসায়ী নেতা মাহবুবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, রোকেয়া আফজাল হোসেন, মীর নাসির হোসেনসহ নেতৃত্বস্থানীয় ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা উপস্থিত রয়েছেন। ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি নতুন প্রজন্মের উদ্যোক্তা এবং সারাদেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত কিছু মেধাবী শিক্ষার্থীও এতে অংশ নিয়েছে।