শরীয়তপুর-৩ আসনে ধানের শীষের মিছিলে হামলা প্রার্থী মিয়া নুরুদ্দিন অপুরসহ অর্ধশতাধিক আহত

0
86

শরীয়তপুর প্রতিনিধিঃ শরীয়তপুর-৩ (গোসাইরহাট-ডামুড্যা-ভেদরগঞ্জ) আসনে ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী ও তারেক রহমানের একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী মিয়া নুরুদ্দিন অপুর ওপর ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা কর্মীরা হামলা করেছে। মিয়া নুরুদ্দিন অপুর কোদালপুরের বাড়ি থেকে হাজার হাজার নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে সোমবার বেলা সারে ১১টার দিকে গোসাইরহাট উপজেলা বিএনপির কার্যালয়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়।

গোসাইরহাট বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন হেলিপ্যাড নামক স্থানে পৌঁছলে সারে ১১টার দিকে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা নুরুদ্দিন অপুর মিছিলে হামলা চালায়। এ সময় মিয়া নুরুদ্দিন অপুসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়েছে।

ঘটনা পরবর্তী গোসাইরহাট উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলমগীর হোসাইন এবং গোসাইরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা কোদালপুর ১০ শয্যা বিশিষ্ট মাও শিশু হাসপাতালে ধানের শীষের প্রার্থী মিয়া উরুদ্দিন অপুকে দেখতে যায়। নুরুদ্দিন অপুকে এয়ার এম্বুলেন্স যোগে ঢাকায় নিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত অন্যান্য নেতাকর্মীদের স্থানীয় বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ছাত্রদল-যুবদল ও বিএনপির আহত নেতাকর্মী জসিম উদ্দিন, খলিল ভুইয়া, মুনছুর হাওলাদার, রিপন বেপারী, বাবু ঢালী, শফিকুল ইসলাম, কাজী কাশেম, নিরব, শামীম সহ অনেকে জানায়, সোমবার সকাল ১০টার দিকে শরীয়ত পুর-৩ আসনের বিএনপির মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী মিয়া নুরুদ্দিন অপু দলীয় নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে কোদালপুরের বাড়ি থেকে গোসাইরহাট উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিলেন।

গোসাইরহাট বাজার সংলগ্ন পট্টি ব্রিজের দক্ষিন ঢালে হেলিপ্যাড নামক স্থানে যাওয়ার পরে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতা-কর্মীরা তাদের উপর হামলা চালায়। ছাত্রলীয় ও যুবলীগের হামলায় মিয়া নুরুদ্দিন অপু সহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে। আহতের গোসাইরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিতে চাইলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীরা বাঁধা প্রদান করে। পরবর্তীতে তাদের নেতা নুরুদ্দিন অপুকে কোদালপুর ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে আসে। মিয়া নুরুদ্দিন অপুর অবস্থা খুবই আশঙ্কা জনক বিধায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।


ধানের শীষের মিছিলে অংশগ্রহনকারী জেলা মহিলা দলের সভানেত্রী আল আসমাউল হুসনা বলেন, পুলিশের উপস্থি তিতে ধানের শীষের শান্তিপূর্ণ মিছিলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালায়। হামলায় ধানের শীষের প্রার্থী ও তারের রহমানের একান্ত ব্যক্তিগত সহকারী মিয়া নুরুদ্দিন অপুকে উপর্যপুরী আঘাত করে।

এ সময় মিয়া নুরুদ্দিন অপুর মাথা ফেঁটে যায়। শরীরের বিভিন্ন স্থানে পেটানোর ফলে হাত-পায়ে হাড়ভাঙ্গা জখম হয়েছে। মিয়া নুরুদ্দিন অপুর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় এয়ার এম্বুলেন্স যোগে ঢাকায় নিয়ে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

গোসাইরহাট থানা অফিসার ইনচার্জ সেলিম রেজা বলেন, গোসাইরহাট বাজারে নৌকা প্রতিকে সমর্থনে নেতা-কর্মী ও সমর্থকগণ মিছিল করতে ছিল। এ সময় ধানের শীষের মিছিল নিয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীরা গোসাইরহাট বাজারে আসে। তখন একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে গেছে। ধানের শীষ প্রতিকের প্রার্থী নুরুদ্দিন অপু আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। তার সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

গোসাইরহাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার আলগীর হোসাইন বলেন, অনাকাঙ্খিত একটা ঘটনায় ধানের শীষের প্রার্থী মিয়া নুরুদ্দিন অপু আহত হওয়ার সংবাদ পেয়ে কোদালপুর মাও শিশু চিকিৎসা কেন্দ্রে যাই। এয়ার এম্বুলেন্স যোগে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।