চাঁদপুরের আলোর সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে সবাইকে ‘শুভ-নববর্ষ’

0
106

‘কালের কের্ত্তনে নব-উদ্দ্যাম, নতুনের আগমন
বিকাশিত হও সঞ্চিত সুধা করিতে আহোরণ’

গতিময় পৃথিবী, চিরন্তন ধারায় ছন্দময়। চিত্তবিকাশ/যৌবন লালসায় যুগ-বিভাজনে স্থীর। গহণ পথের এই বিকাশমান ধারা যুগ যুগ ধরেই নতুনত্বে ডাক দেয়-প্রকৃতির নিয়মেই। প্রকৃতির এই প্রসারতা, জীবন-যৌবনের সমুন্বয়ের এক নতুন বার্তা। পৃথিবীর এই নতুনবার্তার আরও একটি নতুন সংযোজন ২০১৯ সাল। শুভ-নববর্ষ।

আজ রাত দ্বি-প্রহরে, বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের লক্ষ-কোটি মানুষ মেতে উঠবে নতুন প্রেরনায়- নতুনের ডাকে। পিছনে ফেলে আসা দিনের গ্লানি-ক্লান্তি ভুলে নতুন বছরকে নতুন করে দেখবে, আশান্বিত হবে।, প্রাতঃ জীবনে-অনাগত নতুন স্বরোবর,ভরিয়ে দিবে আর্ত-প্রীতমের তৃষ্ণার্ত হৃদয়কে।

এই শুভক্ষণে, চিরঅবস্থ্য, আর অনাগত শুভ-কামনায় আমার হৃদি-আরতি রইল, মান্যবর,ও স্নেহধণ্য সকলের প্রতি।বাসনা রইল,প্রনয়-দীপ্ত ভালবাসায় ভরে উঠুক,মমকল্প-প্রমিলার ধরিত্রী। জীবন, যৌবন-হোক ভালবাসার রসায়নে বিস্তৃর্ণ-বিকাশমান, স্বর্গলোকের…ইন্দ্রাণীর আলিঙ্গনের অভিপ্রায়ে।

খ্রিষ্টীয় নববর্ষ উপলক্ষে আমার হৃদয় নিংরানো ভালবাসায় গড়া”‘ চাঁদপুরের আলোর সামাজিক সংগঠনের সকল সদস্যকে শুভ-নববর্ষও অভিনন্দন রইল।

আজকের এইদিনে ভ্রাতৃ-প্রীতম ভালবাসা আর শ্রদ্ধার্ঘ জানাই আমার জন্ম বাতিঘর চাদঁপুর জেলার সর্ব সাধারনকে।
পিছনে ফেলে আসার প্রাপ্তি/ভ্রান্তি সকলকে নতুনের ডাকে বিকাশিত করুক জীবন-জয়গানের স্রোত ধারা-এই শুভ কামনা রইল সকলের প্রতি।

কবির ভাষায়-

নিশী অবসানপ্রায়, ওই পুরাতন
বর্ষ হত গত।
আমি আজি ধূলিতলে এই জীর্ণ জীবন
করিলাম নত।
বন্ধু হও,শত্রু হও, যেখানে-যে কেহ রও,
ক্ষমা করো আজিকার মতো।
পুরাতন বরষের সাথে
পুরাতন আপরাধ যত।

শুভাধণ্য,
মোঃ জহিরুলইসলাম
সভাপতি, চাদঁপুরের আলো সামাজিক সংগঠন।