জাবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে উপাচার্য পন্থীদের ভরাডুবি 

0
58
আরিফুল ইসলাম আরিফ, জাবি প্রতিনিধি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে ভরাডুবি ঘটেছে বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম পন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধু আদর্শের শিক্ষক পরিষদের’। অন্যদিকে নির্বাচন সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জয় লাভ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও বামপন্থী শিক্ষকদের জোট ‘সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ’।
নির্বাচনে ‘সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ’ মনোনীত প্রার্থী পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার সভাপতি এবং ফার্মেসী বিভাগের অধ্যাপক মো. সোহেল রানা সম্পাদক র্নিবাচিত হয়েছেন।
সভাপতি পদে অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার ৫৫ ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হন। তিনি ২৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বঙ্গবন্ধু আদর্শের শিক্ষক পরিষদ মনোনীত প্রার্থী অধ্যাপক মো: আব্দুল মান্নান পেয়েছেন ২৩৮ ভোট। সম্পাদক পদে অধ্যাপক মো. সোহেল রানা ২৯২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হোন। তার নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বী অধ্যাপক বশির আহমেদ পান ২৪২ ভোট।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় নির্বাচন কমিশনার অধ্যাপক ড. এ কে এম আবুল কালাম এ ফলাফল ঘোষণা করেন।
এছাড়া সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ থেকে যুগ্ম সম্পাদক পদে ইংরেজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক লাইজু নাসরীন, কোষাধ্যক্ষ পদে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক মো. মনোয়ার হোসেন, সদস্য পদে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক মাহবুব কবির, অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মোহাম্মদ আমজাদ হোসেন, সরকার ও রাজনীতি বিভাগের অধ্যাপক মো. শামছুল আলম, নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস এবং পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সৈয়দ হাফিজুর রহমান নির্বাচিত হয়েছেন।
অপরদিকে উপাচার্য পন্থী শিক্ষকদের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধু আদর্শের শিক্ষক পরিষদ’ থেকে সহ-সভাপতি পদে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক যুগল কৃষ্ণ দাশ, সদস্য পদে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক এ.এ. মামুন, নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক রাশেদা আখতার, অর্থনীতি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক আয়শা সিদ্দিকা এবং ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং বিভাগের মাহফুজা খাতুন নির্বাচিত হয়েছেন।

নির্বাচিত সভাপতি অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় জানান, ‘শিক্ষক সমিতি প্রশাসনের বিরুদ্ধে কোন সংগঠন নয়। আমরা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের স্বার্থসংশ্লষ্টি যেকোন দাবি আদায়ে তৎপর থাকবো। শিক্ষার পরিবেশ সৃষ্টিতে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নমূলক কাজে প্রশাসনকে সহযোগিতা করবো।’

প্রসঙ্গত, নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা ছিল ৫৮১ জন এবং ভোট দিয়েছেন ৫৪৯ জন। ভোট গ্রহনের অনুপাত প্রায় ৯৪.৪৯%। সকাল থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ভোট গ্রহন চলে। নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনার হিসেবে কাজ করেন নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের অধ্যাপক একেএম আবুল কালাম। আর সহকারী নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আকতার মাহমুদ এবং আইবিএ-জেইউ’র সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম।