কুবিতে বাংলা বিভাগের আয়োজনে প্রভাতফেরি

0
60

কুবি প্রতিনিধি: মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) প্রথমবারের মত প্রভাতফেরির আয়োজন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) কাকডাকা ভোরে এই প্রভাতফেরির আয়োজন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ ও বিভাগের সহযোগী সংগঠন বাংলা ভাষা-সাহিত্য পরিষদ।

বৃহস্পতিবার সকালে প্রভাতফেরির বর্ণাঢ্য ও গাম্ভীর্যপূর্ণ শোভাযাত্রাটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও সমাজবিজ্ঞান অনুষদ থেকে শুরু হয়ে বাংলার প্রাচীন নিদর্শন কুমিল্লার শালবন বিহার সংলগ্ন সড়কসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়। এরপর শহীদ বেদিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের পাশাপাশি ভাষা আন্দোলনে আত্মত্যাগকারীদের অবিস্মরণীয় অবদানের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে প্রভাতফেরির দলটি।

বাংলা বিভাগের সভাপতি শামসুজ্জামান মিলকী ও প্রভাষক নূর মোহাম্মদ রাজুসহ বিভাগের বিভিন্ন আবর্তনের শিক্ষার্থীরা প্রভাতফেরিতে উপস্থিত ছিলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মতো আয়োজিত এই প্রভাতফেরিতে অংশ নিয়ে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে পেরে গর্বিত বোধ করেন তারা।

বিভাগের ৬ষ্ঠ আবর্তনের শিক্ষার্থী তাইয়্যেবুন মিমি জানান, ‘ইতিহাসের আবেগঘন অংশ ভোরবেলায় প্রভাতফেরিতে খালিপায়ে হেঁটে শহীদ মিনারে ফুল দিতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। বাংলা বিভাগের এই আয়োজনের অংশ হতে পেরে খুবই কৃতজ্ঞ এবং গর্বিত বোধ করছি।’

বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রথমবারের মত আয়োজিত প্রভাতফেরি প্রসঙ্গে বাংলা বিভাগের সভাপতি শামসুজ্জামান মিলকী বলেন, ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩ বছরে এবারই প্রথম বাংলা বিভাগের উদ্যোগে প্রভাতফেরির আয়োজন করা হয়েছে। সারা বিশ্বে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করা হয় একুশের প্রথম প্রহরে। আগে প্রায় সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয়েই সকালে প্রভাতফেরি করা হতো। খালি পায়ে হেঁটে হেঁটে শহীদ মিনারে যাওয়া হতো। এখন তেমনটা করা হয় না। ভাষা শহীদদের যথাযথ সম্মান ও শ্রদ্ধা জানাতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ প্রথম প্রভাতফেরি শুরু করেছে, ভবিষ্যতেও প্রভাতফেরি করবে।’

উল্লেখ্য, এর আগে একুশের প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সাথেও শহীদ মিনারে ফুলেল শ্রদ্ধা জানায় বিভাগটি।