ইতিহাসের পাতায় ডাকসুর নেতৃত্ব

0
104

ভোরের আলো ফোটার পর পরই উৎসবে মেতে উঠবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। দীর্ঘ ২৮ বছর পর বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদে নের্তৃত্ব দিতে ভোটে লড়বেন ছাত্র নেতারা। এ নির্বাচন ঘিরে স্নায়ুযুদ্ধ এখন তুঙ্গে। এটি হবে ডাকসুর ৩৭তম নির্বাচন। ইতিহাস বলে ডাকসুর নেতৃত্বে যারা ছিলেন, তারাই পরবর্তীতে দেশের রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন।

১৯২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) সৃষ্টি হয়। তখন ডাকসুর প্রথম ভিপি ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) নির্বাচিত হন যথাক্রমে মমতাজ উদ্দিন আহমেদ ও যোগেন্দ্রনাথ সেনগুপ্ত। 

১৯২৮-২৯ শিক্ষাবর্ষে ভিপি ও জিএস হিসেবে নির্বাচিত হন এএম আজহারুল ইসলাম ও এস চক্রবর্তী। ১৯২৯-৩২ শিক্ষাবর্ষে রমণী কান্ত ভট্টাচার্য ভিপি ও যৌথভাবে কাজী রহমত আলী-আতাউর রহমান জিএস হিসেবে নির্বাচিত হন।

১৯৪৭-৪৮ শিক্ষাবর্ষে অরবিন্দ বোস ভিপি ও যুদ্ধাপরাধের দায়ে দণ্ডিত গোলাম আযম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত হন। ১৯৫৩-৫৪ সালে এসএ বারী এটি ছিলেন সভাপতি। যৌথভাবে জিএস হন- জুলমত আলী খান-ফরিদ আহমেদ।

এরপর ভিপি ও জিএস নির্বাচিতদের মধ্যে রয়েছেন যথাক্রমে- নিরোদ বিহারী নাগ ও আব্দুর রব চৌধুরী, একরামুল হক ও শাহ আলী হোসেন, বদরুল আলম ও মো. ফজলী হোসেন, আবুল হোসেন ও এটিএম মেহেদী।

১৯৫৭-৫৮ শিক্ষাবর্ষে ভিপি ছিলেন- আমিনুল ইসলাম তুলা ও জিএস ছিলেন- আশরাফ উদ্দিন মকবুল। এরপর ভিপি-জিএস ছিলেন যথাক্রমে বেগম জাহানারা আখতার ও অমূল্য কুমার,এসএম রফিকুল হক ও এনায়েতুর রহমান।

১৯৬২-৬৩ শিক্ষাবর্ষে ভিপি ছিলেন শ্যামা প্রসাদ ঘোষ এবং জিএস ছিলেন কে এম ওবায়েদুর রহমান। ১৯৬৩-৬৪ শিক্ষাবর্ষে ভিপি ছিলেন রাশেদ খান মেনন এবং জিএস ছিলেন মতিয়া চৌধুরী।

এরপর ভিপি-জিএস হন যথাক্রমে বোরহান উদ্দিন ও আসাফুদ্দৌলা, ফেরদৌস আহমেদ কোরেশী ও শফি আহমেদ, মাহফুজা খানম ও মোরশেদ আলী, তোফায়েল আহমেদ ও নাজিম কামরান চৌধুরী, আ স ম আব্দুর রব ও জাতীয় বীর আব্দুল কুদ্দুস মাখন।

১৯৭২-৭৩ শিক্ষাবর্ষে ভিপি-জিএস নির্বাচিত হন- মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও মাহবুবুর জামান। ১৯৭৯ সালে ভিপি-জিএস হন মাহমুদুর রহমান মান্না ও আখতারুজ্জামান। ১৯৮০ সালে ভিপি-জিএস হন মাহমুদুর রহমান মান্না ও আখতারুজ্জামান। ১৯৮২ সালে ভিপি-জিএস হন আখতারুজ্জামান ও জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু। 

১৯৮৯-৯০ শিক্ষাবর্ষে ভিপি-জিএস হন সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ ও মুশতাক হোসেন। এবং সর্বশেষ ১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষে ভিপি-জিএস হন আমান উল্লাহ আমান ও খায়রুল কবির খোকন।