লালমনিরহাটে সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম

0
15

শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,লালমনিরহাট প্রতিনিধি: পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবিতে ৭২ ঘন্টার আল্টিমেটাম দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

বুধবার (২৭ মার্চ) দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ গেটে ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এ আল্টিমেটাম দেয়া হয়।

মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা জানান, মহান স্বাধীনতা দিবসের র‌্যালীতে কতিপয় লোক লাঠি ও লোহার রড নিয়ে অংশ নেয়। স্বাধীনতার র‌্যালীতে পতাকা না নিয়ে লাঠি শোটার শোডাউনের ছবি তুলতে যান দৈনিক মানবকন্ঠের লালমনিরহাট প্রতিনিধি আসাদুজ্জামান সাজু ও আমাদের সময়ের প্রতিনিধি নুরনবী সরকার। এ সময় মিছিলের লাঠি শোটার লোকজন সাংবাদিকদের ওপর অতর্কিত হামলা চালিয়ে ক্যামেরা কেড়ে নিয়ে ভাংচুর করে।
এ সময় স্থানীয়রা ওই দুই সাংবাদিককে উদ্ধার করতে গিয়ে আরো তিন জন আহত হন। পরে আহতদের উদ্ধার করে হাতীবান্ধা হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে সাংবাদিক আসাদুজ্জামান সাজুকে রংপুর মেডিকেলে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা।

এ ঘটনায় ওই দিন মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) রাতে ৯ জনের নামসহ অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০ জনের বিরুদ্ধে হাতীবান্ধা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন সাংবাদিক আসাদুজ্জামান সাজু। ওই রাতেই পুলিশ মিতু নামে এক জনকে গ্রেফতার করলেও বাকীরা রয়েছেন ধরাছোয়ার বাহিরে।

সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কয়েকটি সাংবাদিক সংগঠন বুধবার (২৭ মার্চ) হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ গেটে প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেন। আগামী ৭২ ঘন্টার মধ্যে সকল আসামিকে গ্রেফতার করা না হলে শনিবার লালমনিরহাট শহরে প্রতিবাদ কর্মসূচি গ্রহণের ঘোষণা দেন সাংবাদিক নেতারা।

হাতীবান্ধা প্রেস ক্লাবের আহবায়ক স্বপন কুমার দের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, আহত সাংবাদিকের মেয়ে ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী উম্মে সুরাইয়া, প্রফেশনাল জার্নালিষ্ট ফোরামের সভাপতি এস দিলীপ রায়, সম্পাদক মাজেদ মাসুদ, প্রেস ফোরের সদস্য সচিব মিজানুর রহমান দুলাল, মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম লালমনিরহাট শাখার সভাপতি খোরশেদ আলম সাগর, সাংগঠনিক সম্পাদক নিয়াজ আহমেদ শিপন, বিএমআই সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাষ্ট লালমনিরহাটের সভাপতি মাহফুজ সাজু, সম্পাদক এসআর শরিফুল ইসলাম রতন, সাংবাদিক কাজি আলতাফ হোসেন, হাতীবান্ধা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ইলিয়াস বসুনিয়া পবন ও সদস্য সচিব ফারুক হোসেন নিশাত প্রমূখ।

প্রতিবাদ মানববন্ধন ও সমাবেশ শেষে একই দাবিতে সাংবাদিকরা হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সামিউল আমিন ও হাতীবান্ধা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুকের সাথে পৃথক বৈঠক করে হামলাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানান।