চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদক বিরোধী সমাবেশ

0
145


চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলাকে মাদকমুক্ত করতে মাদক বিরোধী সমাবেশ হয়েছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে। আজ শুক্রবার চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও মাদকদ্র্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জ কার্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে মাদকবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও পাবনা-১ আসনের এমপি মো. শামসুল হক টুকু। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, জেলা প্রশাসক ও জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ প্রচারণা কমিটির সভাপতি এ জেড এম নূরুল হক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদ ও সদর আসনের সাবেক এমপি মো. আব্দুল ওদুদ, আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির নির্বাহী সদস্য নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সভাপতি মো. বজলুর রহমান, পুলিশ সুপার টি.এম মোজাহিদুল ইসলাম বিপিএম-পিপিএম, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর বিভাগীয় কার্যালয়ের অতিরিক্ত পরিচালক মো. জাফরুল্ল্যাহ কাজল, ৫৯ বিজিবি ব্যাটালিয়ন চাঁপাইনবাবগঞ্জ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এস এম সালাহউদ্দিন পিপিজিএম।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রুহুল আমিন, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হালিমা বেগম, মাওলানা সোহরাব আলীসহ অন্যরা। উপস্থিত ছিলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. আব্দুস সামাদ, জেলা সুপার মো. শফিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. আবুল কালাম, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল লতিব, জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি সাকিনা খাতুন পারুল, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. মিজানুর রহমান, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুর রেজা ইমন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আনিছুর রহমান খাঁন, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোখলেশুর রহমান, জনপ্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান প্রধান, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, বিভিন্ন মসজিদের ইমামগণ ও বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়াকর্মী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ।

প্রধান অতিথি বলেন, মাদক নিয়ন্ত্রণ না হওয়ার পেছনে আমাদের সকলেরই কিছু না কিছু গলদ রয়েছে। তিনি বলেন, আন্তজার্তিক বিশ্বে বাংলাদেশকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে মাদকমুক্ত করতে হবে। তিনি বলেন নতুন প্রজন্মকে রক্ষা না করতে পারলে, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ে তোলা সম্ভব হবে না। ইতিপূর্বে ধর্মের নামে জঙ্গী সৃষ্টি করে দেশকে মাদকের দিকে ঠেলে দিয়েছিলো স্বাধীনতা বিরোধী শক্তিরা। এজন্যই বর্তমান সরকারকে মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করতে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, অস্ত্র, মাদক দিয়ে নতুন প্রজন্মকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেয়া হয়েছে। আজ সময় এসেছে মাদকের বিরুদ্ধে পরিবার থেকেই সচেতনতার আওয়াজ তুলতে হবে।

মাদকের কুফল বিষয়ে পরিবার থেকে তরুণ সমাজের কাছে তুলে ধরতে হবে। ইমাম ও শিক্ষকদের মাদকের ব্যবহার থেকে বিরত থাকার জন্য সকলের কাছে তুলে ধরারও আহবান জানান। তিনি বলেন, শুধু আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উপর ছেড়ে দিলেই হবে না, সমাজের সকল স্তরের মানুষকে এগিয়ে আসতে হবে মাদক নির্মূলে। তিনি সুস্থ মানবসম্পদ গড়ে তুলতেও সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। জেলার সীমান্তের গরুর বিট খাটাল গুলো বন্ধের পরামর্শ পুলিশ সুপার। তিনি বলেন গরু আনার সাথে মাদক পাচারের একটা সম্পর্ক রয়েছে।

অস্ত্রসহ বিভিন্ন মাদক আসছে গরু নিয়ে আসা চক্রের লোকজন। সেজন্যই জেলা থেকে মাদক নির্মূল করতে হলে অবশ্যই বিট-খাটাল বন্ধ করতে হবে। তিনি সীমান্তে হুন্ডি ব্যবসা বন্ধেরও পরামর্শ দেন এবং সকলকে মাদক নিয়ন্ত্রণে আন্তরিক হওয়ার আহবান জানান। বক্তারা পরিবার থেকেই মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে মাদকের বিস্তার রোধ করে তরুণ সমাজকে রক্ষায় কাজ করে সকলে মিলে একটি সুস্থ মানবসম্পদ গড়ে তোলার আহবান জানান।