তারেকে ফিরিয়ে এনে শাস্তি কার্যকর করা হবে- প্রধানমন্ত্রী

0
83

জাপান, সৌদি আরব ও ফিনল্যান্ড সফর করে গতকাল শনিবার দেশে ফেরেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ তিনি ওই সফর নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন।  সংবাদ সম্মেলনে তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনা প্রসঙ্গে প্রশ্নে শেখ হাসিনা একুশে আগস্ট হত্যা মামলার প্রসঙ্গ আনেন। 

শেখ হাসিনা বলেন, ওই একুশে আগস্টের হামলায় আইভি রহমানসহ ২৮ জন মানুষ নিহত হন। শতাধিক মানুষ আহত হন। শুধু একুশে আগস্ট নয়, ১০ ট্রাক অস্ত্র চোরাচালানের সঙ্গেও যুক্ত সে (তারেক রহমান)।

শেখ হাসিনা বলেছেন, এসব ব্যক্তির জন্য অনেকের মায়াকান্না দেখছি। আমরা যুক্তরাজ্যের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছি। তবে ওরা অনেক টাকার মালিক। সব সময় চেষ্টা করে ঝামেলা সৃষ্টি করার। আমি সেখানে গেলেও ঝামেলা সৃষ্টি করতে চায়। তবে যাই হোক, তার শাস্তি কার্যকর হবে।

আজ সংবাদ সম্মেলনে বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশনের ক্ষেত্রে কঠোর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে ফিনল্যান্ড থেকে আনতে যাওয়ার বিমানের উড়োজাহাজের পাইলটের পাসপোর্ট ছেড়ে কাতার যাওয়ার ঘটনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এটা ইমিগ্রেশনের দুর্বলতা। 

১২ দিনের সরকারি সফরের বিষয়ে দেশবাসীকে অবহিত করতে বিকেল পাঁচটটার দিকে সংবাদ সম্মেলনে আসেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই তিন দেশ সফর নিয়ে লিখিত বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি জাপানের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের ঐতিহাসিক পরম্পরা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, স্বাধীনতার সময় এবং পরে আমাদের সহায়তা করেছে জাপান। এবারের সফরে আড়াই শ কোটি ডলারের চুক্তির কথা উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা।

ফিনল্যান্ড সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে তারা খুব দক্ষ। তাদের একটি দল আসবে। তাদের বিনিয়োগে আমরা আহ্বান জানাই। এসব খাতে সম্ভাবনা করতে তারা বাংলাদেশে আসবে। 

সংবাদ সম্মেলনে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে একাধিক প্রশ্ন আসে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাপান, চীন সরকারসহ বিভিন্ন সরকারের সহায়তা আছে। সমস্যা হলো মিয়ানমারকে নিয়ে। সবাই চায় রোহিঙ্গারা নিজ দেশে ফিরুক। মিয়ানমার নিতে চায় না। এখানেই সমস্যা। 

আসছে বাজেটে সামাজিক কল্যাণ খাতে সরকারের অগ্রাধিকার কী হবে—এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি বাংলাদেশে বিশাল। প্রতিবন্ধী, বিধবা, অসহায় দারিদ্র্য পীড়িত মানুষের জন্য সরকার নানা কর্মসূচি নিয়েছে। এসব অব্যাহত থাকবে। 

ফিনল্যান্ডে থাকার সময় প্রধানমন্ত্রী ৪ জুন দেশটির প্রেসিডেন্ট সওলি নিনিসতোর সঙ্গে বৈঠক করেন। পরদিন সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের দেওয়া এক সংবর্ধনায় যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

৩১ মে টোকিও থেকে সৌদি আরবে তিন দিনের সফরকালে প্রধানমন্ত্রী মক্কায় অনুষ্ঠিত ১৪তম ওআইসি শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দেন। এ ছাড়া তিনি মক্কায় পবিত্র ওমরাহ পালন এবং মদিনায় মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেন। (সূত্র: বাসাস)