আগস্ট থেকেই মালয়েশিয়ায় যাবে বাংলাদেশি শ্রমিক

0
69

জুলাই মাসের মাঝামাঝি বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খুলে দেয়ার গুঞ্জন থাকলেও সেটি আগস্ট মাস থেকে উন্মুক্ত করার চিন্তা করছে মালয়েশিয়া সরকার। সম্প্রতি মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন বিন আব্দুল্লাহর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পর বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এ তথ্য জানিয়েছেন।

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খোলার বিষয়টিকে স্বস্তিদায়ক বলে বিবেচনা করছেন বিশ্লেষকরা।

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ এ বিষয়ে বলেন, মালয়েশিয়ার শ্রমবাজারটি বাংলাদেশের কর্মীদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এর আগে বেশ কয়েকবার খোলার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত সেটি আর হয়নি। অবশেষে এবার হচ্ছে। দুই দেশের সরকার যদি একযোগে কাজ করতে পারে তাহলে এর মাধ্যমে দুই দেশই লাভবান হবে।

বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করে দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই অধ্যাপক বলেন, শ্রম বাজারের পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ সরকারের হাতে থাকে না। শ্রম বাজারে বেসরকারি খাত অনেক বেশি প্রভাব বিস্তার করে। সুতরাং সরকারকে গুরুত্বের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। ভুল বোঝাবুঝি যেনো না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

১৯৭৬ সালে বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য খুলে দেয়া হয় মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার। এরপর থেকে চলতি বছর পর্যন্ত সেখানে মোট ১০ লাখেরও বেশি বাংলাদেশি শ্রমিক কাজ করতে গিয়েছেন। পূর্ব এশিয়ার এই দেশটি থেকে এখন পর্যন্ত ২০ কোটি মার্কিন ডলারেরও বেশি অর্থের রেমিট্যান্স এসেছে।

এ বিষয়ে অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের শ্রমশক্তির ওপর মালয়েশিয়ার আস্থা রয়েছে। সেই আস্থার জায়গাটি ঠিক রেখে দেশের আয় বাড়াতে হবে। কর্মী পাঠানোর পুরো প্রক্রিয়াটি যোগ্যতা ও স্বচ্ছতার সঙ্গে সম্পন্ন করতে হবে, যাতে করে দু’দেশের বন্ধুত্বের জায়গাটি আরো দৃঢ় হয়।

এদিকে বাংলাদেশি কর্মীদের প্রসঙ্গে মালয়েশিয়ার সফররত পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন বিন আব্দুল্লাহ বলেন, মালয়েশিয়াকে শক্তিশালি হতে সহায়তা করেছে বাংলাদেশি জনশক্তি। আমাদের নতুন সরকারের মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় জনশক্তি খাতের কর্মীদের যথাযথ বেতনসহ বিভিন্ন বিষয় নির্ধারণ করে বাজার খুলে দিতে গুরুত্বের সঙ্গে কাজ করছে। শিগগিরই সমস্যা কেটে যাবে।

এ ব্যাপারে অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, বিষয়টিকে কূটনীতিক ভাবে সামাল দিয়ে শ্রমবাজার খোলার দিনক্ষণ ঠিক করতে মালয়েশিয়াকে রাজি করাতে হবে। বিষয়টি যদিও ঠিক করাই আছে! তবু দ্রুত ঘোষণা হলে সেটি আমাদের জন্যই ভাল হবে।