মানিকগঞ্জ সাটুরিয়ায় চেয়ারম্যানকে কাফনের কাপড় পাঠিয়ে হত্যার হুমকি

0
110

 

মানিকগঞ্জ থেকে আবু-বক্কর সিদ্দিক: জেলার সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. রহুল আমিনকে হত্যার হুমকি দিয়েছে আগাছা নির্মূল কমিটি নামে একটি সংগঠন। এর আগেও তাকে এমন হত্যার হুমকি দিয়েছিল আনছারউল্লা বাংলা ভাই আরেকটি সংগঠন।

এ ঘটনায় চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমিন মঙ্গলবার রাত ৮ টার দিকে সাটুরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে পুলিশ এই আগাছা নির্মূল কমিটির কাফনের কাপড় দিয়ে ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দলের নেতাকে হুমকির বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখছেন।

বালিয়াটি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো. রহুল আমিন বিষয়টি নিশ্চিত বলেন, গত সোমবার সন্ধায় প্রতিদিনের মত বিকালে অফিস করতে বসেন। এমন সময় তার ডাক ফাইলে রেজিষ্ট্রীকৃত জেড, আর ইসলাম, সিংগাইর মানিকগঞ্জ, ০১৫৭২৩০৩০৪৯ এই নামে প্রেরকের ঠিকানায় তার আরেকটি পদবী বালিয়াটী দাখিল মাদ্রাসার ঠিকানায় একটি খামে চিঠি আসে। খামটি খুলে দেখি কাফনের কাপড় সম্বলিত একটি হত্যার হুমকির চিঠি।

এতে লেখা বালিয়াটী দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি উল্লেখ করে লাল সালাম নিও। যদিও তুমি সালামের যোগ্য নও। কারন তুমি দাবী কর মোসলিম আবার ইসলাম বিরোধী কাজও কর। ওমরা করেছো, হাসি পায়। সরকারী টাকায় ওমরা , ইসলাম নিয়ে ব্যবসা। লোক দেখানো নামাজ পড়া। কখনো সঠিক বিচার কর না। যা হোক মাদ্রাসার বিষয়ে কোন ধরনের অনিয়ম করলে তোমার ও তোমার পরিবারের বড় ধরনের ক্ষতি হবে। মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাক।

এই বিষয়ে আইনের আশ্রয় নিলে লাভ নেই। মানুষ তোমাকে ভয় পায়, সম্মান করে না। হয়ত তোমিও ভাল জানো। ক্ষমতার কারনে আজ তুমি মানুষকে মানুষ মনে কর না। তোমার পরিবারের সদস্যরা নিজেদেরক ছোট খাটো ভগবান মনে করে। তোমিও কর। জাহিদ মালেক একজন ভালো মানুষ। সে গরীবের বন্ধু। তার নাম ব্যাবহার করে তুমি জাহিদ মালেক ও আওয়ামী লীগের ক্ষতি করছ। বদলে যাও অথবা মৃত্যুর জন্য রেডি থাক। নমুনা হিসেবে এক টুকরো সাদা কাপড় পাঠালাম।

ইতি সভাপতি, আগাছা নির্মোল কমিটি (অনিক), বালিয়াটী শাখা। আবার ওই চিঠি অনুলিপি প্রেরন করা হয়েছে, ১. কেন্দ্রীয় সভাপতি, ২. সকল শাখা সভাপতি, ৩. অপারেশন ডিভিশন এবং ৪. আইনী পরামর্শ কেন্দ্র।

বালিয়াটি ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, এর আগেও আরেকটি চিঠি আমার ইউপি নির্বাচনের সময় আনছারউল্লা বাংলা ভাই নামে একটি সংগঠন আমাকে হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি দিয়েছিল। আমার প্রতিপক্ষ গ্রুপ এই হুমকি দিতে পারে। বিষয়টি নিয়ে আমি মঙ্গলবার রাতে মামলা সাটুরিয়া থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছি।

এ ব্যাপারে সাটুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মতিয়ার রহমান মিঞা বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তার পদ পদবি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের কুটুক্তিসহ আমার পরিবারের সদস্যদের যে কোন ক্ষতি সাধন করিবে আমাকে খুন করিবে বলে হুমকি দিয়েছে উল্লেখ করে জিডি করেছে। বিষয়টি আমরা অধিক গুরুত্ব দিয়ে তদন্ত করছি।