ড্রাইভার নিয়োগ নিয়ে ইবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দেনদরবার !

0
981

 

আদিল সরকার, ইবি প্রতিনিধি:  ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ড্রাইভার নিয়োগে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবরে সাথে এক ব্যাক্তির কথোপকোথনের অডিও ভাইরাল হয়েছে। অডিওতে ওই ব্যাক্তির সাথে রাকিবের ড্রাইভার নিয়োগ নিয়ে বিভিন্ন কথপোকথন শোনা যায়।

অডিও ক্লিপটি ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ায় বিভিন্ন মহলে আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে এর প্রতিবাদ করে বিচার দাবি করছেন। অডিও ক্লিপটি এই প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে।

পাঠকদের জন্য অডিও ক্লিপের কিছু অংশ তুলে ধরা হলো-

ব্যক্তি: আরেকটা ব্যপারে শুনলাম, শুনে রাখো..

রাকিব: ভাই কোনটা?

ব্যক্তি: বিশ্ববিদ্যালয়ে কি ড্রাইভার ট্রাইভার নিয়োগ হবে এরকম কোনো….

রাকিব: ওইটাতো ঈদের পরে হবে। এখন আমি হচ্ছে…..আপনার হাতে কি কিছু আছে?

ব্যক্তি: আছে, আছে। ঈদের আগে চাইলে কিছু এডভান্স নিতে পারো

রাকিব: তাইলে ঈদের আগে কিছু ব্যবস্থা করে দেন আমারে

ব্যক্তি: আচ্ছা ঠিক আছে।

রাকিব: আমি ঢাকায় যাচ্ছি, আর শোনেন ফোনে মনে হয় খুব রিক্স। এখন আমি মনে করেন যে.. বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাপার স্যাপার খুব ই-তো। ঈদের পরে নিবে মনে হয়

ব্যক্তি: হ্যা হ্যা..

রাকিব: আপনি মিডিয়া হয়ে কথা বলেন যদি হয় কালকের মধ্যে কনফার্ম করেন। আমি ব্যবস্থা করে দিবোনে

ব্যক্তি: আচ্ছা..

রাকিব: আমি কারো সাথে কথা বলি নাই বুঝছেন, একটু ঝামেলার মধ্যে আছি

ব্যক্তি: তুমি আমাকে একটা ধারনা দিয়ে যাও যে, ড্রাইভারের ব্যপারে ফিগার কতো (কত লাগতে পারে) এই ধারনাটা দিয়ে দাও
রাকিব: ও.. আমি বলি আপনারে.. আমি ম্যাসেঞ্জারে ফোন দিচ্ছি আপনারে..

অভিযুক্ত রাবিবের বিরুদ্ধে এর আগেও নিয়োগ বাণিজ্যের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে যুক্ত রুহুল আমিনের সাথে তার সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে জানা যায়। এছাড়াও নারী কেলেঙ্কারী ও ভর্তি বাণিজ্যের সাথেও জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

এবিষয়ে সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব বলেন, অডিওটা আমার না। আমার কণ্ঠের মত কণ্ঠ নকল করে কেউ এগুলা করছে। এই বিষয়ে আমি কিছু জানি না।