আবরার হত্যার প্রতিবাদে ইবি শিক্ষার্থীদের মহাসড়ক অবরোধ

0
30
ইবি প্রতিনিধি: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের হত্যাকারীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ করেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীরা।সোমবার (৭ অক্টোবর) বেলা ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক সংলগ্ন কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়কে এ অবরোধ করে তারা।
 
জানা যায়, বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের মৃত লাশ গত রবিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের নিচতলা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। ফেসবুকে স্ট্যাটাসের জেরে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উপর্যুপরি আঘাতে তার মৃত্যু হয়। 
 
সোমবার সকালে আবরার নিহতের এই খবর ছড়িয়ে পড়লে তার হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এসময় আধাঘন্টার বেশি সময় ধরে মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। সেই সাথে ‘শিক্ষা সন্ত্রাস এক সাথে চলে না, সন্ত্রাসীদের কালো হাত ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও, আবরার হলো আমার ভাই, আবরার হত্যার বিচার চাই, আমার ভাই কবরে, খুনি কেনো বাহিরে’-সহ বুয়েট প্রশাসনকে ধিক্কার জানিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দেয় শিক্ষার্থীরা । আন্দোলনের একপর্যায়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে তারা। 
 
সমাবেশে বক্তারা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আবরার হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করে বিচার নিশ্চিত না করলে সাড়া দেশে একযোগে আন্দোলনে নামবে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। 
 
এদিকে অবরোধে কারণে গাড়ি চলাচল বন্ধ হলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে ভোগান্তিতে পড়ে পথযাত্রীরা। তবে এসময় শিক্ষার্থীদের জরুরী পরিবহনগুলো যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দিতে দেখা গেছে। 
 
অবরোধের একপর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. নাসির উদ্দিন আজহারী ও ইবি থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ অবরোধস্থলে আসেন। এসময় ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আরিফ শিক্ষার্থীদের অবরোধ থামাতে দফায়-দফায় বাধা দিয়ে ব্যর্থ হন।
 
পরে স্থানীয় সাংসদ ও আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ অবরোধের কারণে সড়কে আটকা পড়ে আছেন এমন খবর শুনে শিক্ষার্থীরা তার সম্মানার্থে অবরোধ তুলে নেয়।
 
উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই মোড় এলাকায়।