ফেনী নদীর ‘পানি’ দেওয়ায় বাংলাদেশের ক্ষতি হবে না: হাসিনা

0
47

তিস্তা জল বণ্টন চুক্তি না করেই কেন ভারতের ত্রিপুরায় ফেনী নদীর জল সরবরাহ করা হচ্ছে এই বিতর্কের জবাব দিলেন শেখ হাসিনা। বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এক বিশেষ উচ্চতায় উন্নীত হয়েছে।

ফেনী নদীর জল দেওয়া নিয়েও সরকারের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন। তিনি বলেন, এটা বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী একটা নদী। এর ৯৪ কিলোমিটার সীমান্তে, ৪০ কিলোমিটার বাংলাদেশের ভেতরে। সীমান্তবর্তী নদীতে দুই দেশেরই অধিকার থাকে।

 

বিরোধীদের অভিযোগ, ভারতের সঙ্গে দীর্ঘ সময় ধরে আটকে রয়েছে তিস্তা জল বণ্টন চুক্তি। তার পরেও কেন ফেনী নদীর জল ভারতে দেওয়া হবে। হাসিনা বলেন, যে চুক্তিটা হয়েছে, সেটা ত্রিপুরাবাসীর খাবার জলের জন্য। তারা যখন আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে জল তোলে, সেটার প্রভাব আমাদের দেশেও পড়ে। তাই নদী থেকে সামান্য জল দিচ্ছি।

তিনি বলেন, সব জায়গায় আমরা নিজেদের স্বার্থ রক্ষা করেছি। নদীর যেটুকু জল দেওয়া হয়েছে ততটুকু আমাদের অংশে পড়েছে বলেই চুক্তি করেছি।

নয়াদিল্লি সফরে গিয়ে শেখ হাসিনা ফেনী নদীর জল বণ্টন চুক্তি করেন । এর ফলে ফেনী নদী থেকে ১.৮২ কিউসেক জল বাংলাদেশ সরকার পাঠাবে ত্রিপুরার সাব্রুম শহরে। সম্প্রতি ফেনী নদীর জল অবৈধভাবে পাম্প করে ত্রিপুরায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে এমনই অভিযোগ করে ঢাকা। এরপরই ত্রিপুরা রাজ্য সরকার বিষয়টির নিষ্পত্তি চায়।

 

একইভাবে ভারতে প্রাকৃতিক গ্যাস সরবরাহ নিয়েও সমালোচনার জবাব দিয়েছেন হাসিনা। তিনি বলেন, ত্রিপুরায় যে গ্যাস দিচ্ছি, সেটা এলপিজি, বোতল গ্যাস। এটা বিদেশ থেকে আমদানি করে নিজেদের দেশে সরবরাহ করছি। তারই কিছুটা ত্রিপুরায় দিচ্ছি।