রাবি শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত

0
51


রাবি প্রতিনিধি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) এক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ছিনতাইয়ে ব্যর্থ হয়ে তাকে আঘাত করে মাথা ফাটানোর ঘটনায় পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে এ ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ করে ফের আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা।

শনিবার বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভ মিছিল করে সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে দু-পাশের গাড়ি আটকে দেয় তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, যাদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে, তারা সন্দেহভাজন। আমরা মূল আসামির গ্রেপ্তার চাই। আর বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে হবে। পরে বিকেল আড়াইটার দিকে তারা ভর্তি পরীক্ষার কারণে ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিত করে।

শুক্রবার রাতে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করার পর পুলিশ রাতেই তিন জনকে আটক করে গ্রেপ্তার দেখায়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন নগরীর তালাইমারী এলাকার জাহিদ আলীর ছেলে রুবেল হোসেন (২৪), শিরোইল এলাকার বাকির হোসেনের ছেলে রিফাত হোসেন রাকেশ (২৩) ও  মির্জাপুর এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে পারভেজ হোসেন (২৩)।

মহাসড়ক অবরোধের আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানবন্ধন করে শিক্ষার্থী। এরপর বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগও  সেখানে মানবন্ধন করে। সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে নিরাপদ ক্যাম্পাস ও ফিরোজের ওপর হামলার দ্রুত বিচার দাবিতে মানবন্ধন করে ফিরোজের নিজ এলাকা বদরগঞ্জ উপজেলা ছাত্র সমিতি ।

মহাসড়কে অবরোধে বেলা ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা গিয়ে সংহতি প্রকাশ করে রাস্তায় বসে স্লোগান দিতে থাকে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের আশ্বাসে তারা মহাসড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয়। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা এসময় বলেন, আসন্ন ভর্তি পরীক্ষা ও প্রক্টরের আশ্বাসে আন্দোলন ২৪ অক্টোবর পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান বলেন, ‘তিন জনকে গ্রেপ্তার দেখানোর পরও আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা। তাদের সব দাবি মেনে নেওয়া হবে।’

মতিহার থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছি। আজকের মধ্যে আমরা হয়তো প্রমাণ করতে পারবো হামলায় কে জড়িত।’

এর আগে রাত শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকায় ফিরোজ আনাম নামে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ছিনতাইকারীর আঘাতে আহত হন। আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
 
পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে সেখান থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। তার মাথায় তিনটি সেলাই দেওয়া হয়েছে। তবে তিনি এখন শঙ্কামুক্ত বলে জানা গেছে।

এর প্রতিবাদে পাঁচ দফা দাবিতে শুক্রবার রাত ১০টা থেকে রাত পৌনে ৪টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থী।