বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে জাতিকে বিভক্ত করেছে জিয়া- হানিফ

0
362
ইবি প্রতিনিধি: ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যার মূল কর্ডিনেটর ছিলেন সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান। পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্যদিয়ে জাতিকে বিভক্ত করে গেছেন এই জিয়া। যার একটি হলো স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি অন্যটি বিপক্ষের। এই বিভক্ত জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার জন্য বঙ্গবন্ধু হত্যার পিছনে মূল চক্রান্তকারী হিসেবে এই জিয়াসহ যারা জড়িত ছিলো তাদের মুখোশ উম্মোচন করতে হবে।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃক আয়োজিত এক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আওয়ামীলিগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ মাহবুবউল আলম হানিফ।
রবিবার বিকেল সাড়ে তিনটায় ভার্চুয়ালী এ ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শেখ আবদুস সালামের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব-বিদ্যালয়ে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া।
এছাড়া আলোচক ছিলেন সাবেক উপ- উপাচার্য অধ্যাপক ড. শাহিনুর রহমান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, ইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক কাজী আখতার হোসেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাতীয় শোক দিবস উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক জাহাঙ্গীর হোসেন।
সঞ্চালনা করেন ফোকলোর স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন তার বক্তব্যে বলেন, ‘একটি জাতি রাষ্ট্রের জন্ম দিয়েছিলেন বলেই তিনি আজ জাতির পিতা। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করার উদ্দেশ্য রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল ছিলো না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ভূলুণ্ঠিত করে পাকিস্তানি রাষ্ট্রে ফিরে যাওয়া ছিলো উদ্দেশ্য।
কমিশন গঠন করে বঙ্গবন্ধুর প্রকৃত খুনিদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’ সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক শেখ আবদুস সালাম বলেন, পৃথীবিতে কিছু সময় ক্ষণজন্মা মানুষের জন্ম হয়। আসলে তারা জন্মায় না আবির্ভাব হয়। জাতির জনক ক্ষনজন্মা কালজয়ী মহামানবদের একজন।
আমাদের এমন কোন সেক্টর নাই যেখানে বঙ্গবন্ধুর স্পর্শ নেই। তার রাষ্ট্র ক্ষমতার সেই সাড়ে তিন বছরের ভিত্তির উপরে এখনও বাংলাদেশ চলছে।’ এদিকে দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে সকাল সাড়ে দশটায় জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করন, কালো পতাকা উত্তোলন, র‌্যালী ও বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যালে শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন।
এছাড়া শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের সমিতি ও বিভিন্ন সংগঠন, শাখা ছাত্রলীগ, ইবি প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন বিভাগ শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন করেন। পরে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধুর পরিবারসহ ১৫ই আগষ্টে শহীদ হওয়া সকলের স্মরণে ১ মিনিট নিরবতা পালন শেষে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here