বন্দরে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কিশোরীকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার চেষ্টা !

0
239
বন্দর প্রতিনিধি:  বন্দরে ধর্ষনে ব্যর্থ হয়ে ১৫ বছরের এক কিশোরীকে ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে দুই লম্পটের বিরুদ্ধে। গত ৩১ অক্টোবর শনিবার রাতে বন্দর উপজেলার কেওঢালাস্থ বাগদোবাড়িয়া এলাকার রশিদ মিয়ার তিন তলা ভবনে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় এলাকাবাসী মুমুর্ষ অবস্থায় ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে প্রথমে মদনপুর আল বারাকা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।
এ ব্যাপারে আহত কিশোরী বড় বোন রুপা আক্তার বাদী হয়ে ১ নভেম্বর রোববার সকালে ৩ জনের নাম উল্লেখ্য করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এ মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং- ৩(১)২০ ধারা- ৩২৩/ ৩২৫/ ৩০৭/ পেনাল কোড -১৮৬০ তৎসহ ৯(৪)(খ)/৩০ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধনী ২০০৩। এ ঘটনার পর থেকে গ্রেপ্তার এড়ানোর জন্য অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে।
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, বন্দর উপজেলার মদনপুর ইউপির কেওঢালা বাগদোবাড়িয়া গ্রামের আব্দুর রশিদ মিয়ার মালিকানাধিন তিন তলা বিল্ডিংয়ে দ্বিতীয় তলায় ভাড়া থাকেন হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার শিমিলঘড় এলাকার কাইয়ুম খাঁ এর বড় মেয়ে রুপা আক্তার (২০)।
এ সুবাধে গত ১৪ অক্টোবর ওই ভাড়া বাড়িতে বেড়াতে আসে তার ছোট বোন (১৫)। তার পর থেকে ওই বিল্ডিংয়ের নিচে মুদি দোকানদার রুবেল (২৫) এবং অপর ভাড়াটিয়া অপু(২২) ওই কিশোরীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছে ।
কু-প্রস্তাব রাজি না হওয়ায় গত ৩১ অক্টোবর শনিবার রাত ২ টার দিকে রুবেল ও অপু মিলে রুপা আক্তারের ভাড়াকৃত ঘরে দরজায় কড়ানাড়ে। ওই সময় উক্ত কিশোরী সরল বিশ^াসে দরজা খুললে ওই সময় উল্লেখিত দুই লম্পট মূখে চেপে ধরে তাকে ছাদে নিয়ে যায়।
এরপর জোর পূর্বক কিশোরীর পড়নের জামা কাপড় ছেড়ে ফেলে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ওই কিশোরীকে হত্যার জন্য তিন তলা ছাদ থেকে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়।
গভীর রাতে নারী কন্ঠের চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মদনপুর বারাকা হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে তার এক পা এক হাতের হাড় ভাঙ্গা এবং মাথায় আঘাত থাকায় তাকে পঙ্গু হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। এবং ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য অভিযুক্ত লম্পট অপু পিতা হাসান মিয়া ব্যার্থ চেষ্টা চালায়।
বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) ফখরুদ্দীন ভূঁইয়া জানান,ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে কিশোরীকে ছাদ থেকে ফেলে হত্যার চেষ্টার ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ভিকটিমের বড় বোন বাদী হয়ে এ মামলাটি দায়ের করেন।
ধর্ষনের চেষ্টার ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে আসামী অপুর পিতা হাসানকেও এ মামলায় আসামী করা হয়েছে। আসামীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা আমাদের অব্যহত রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here