চাঁপাইনবাবগঞ্জে র‌্যাবের হাতে ৫ প্রতারক এনজিওকর্মী গ্রেফতার

0
122

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ ভূয়া এনজিও দেশবন্ধু পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প সমিতিতে সাধারন মানুষের জমাকৃত কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎকারী প্রতারক চক্রের ৫ এনজিও সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ৫ এর চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা।

বুধবার দিবাগত রাত (বৃহস্পতিবার রাত) সোয়া ১২টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার বিশ^নাথপুর আব্বাস বাজার এলাকায় দেশবন্ধু পল্লী উন্নয়ন সমিতির অফিসের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে, শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট বহলাবাড়ী গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মোঃ নাইমুল ইসলাম (২৯) ও মোঃ সেলিম রেজা (৩১), পার্বতীপুরের মোঃ মতিউর রহমানের ছেলে মোঃ আসমাউল হক (২৫), কানসাট শিকারপুরের মোঃ সুলতান আলীর ছেলে মোঃ সোহেল রানা (২৫) এবং শিবনগরের মৃত আব্দুল কাশেমের ছেলে মোঃ কাইউম রেজা (২২)।

র‌্যাবের প্রেসনোটে বৃহস্পতিবার দুপুরে জানানো হয়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পের একটি অপারেশন ২২ সেপ্টেম্বর রাত সোয়া ১২টার দিকে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে জেলার শিবগঞ্জ থানাধীন বিশ^নাথপুর আব্বাস বাজারে দেশবন্ধু পল্লী উন্নয়ন সমিতির অফিসের সামনে অভিযান চালায়।

এসময় দেশবন্ধু পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প সমিতিতে সাধারন মানুষের জমাকৃত কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎকারী প্রতারক চক্রের সদস্য মোঃ নাইমুল ইসলাম, মোঃ সেলিম রেজা, মোঃ আসমাউল হক, মোঃ সোহেল রানা এবং মোঃ কাইউম রেজা কে গ্রেফতার করে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা দীর্ঘদিন ধরে প্রতারনা  চক্রের সাথে সংঘবদ্ধভাবে গ্রামের সহজ সরল সাধারণ মানুষের টাকা গ্রহণ করে অধিক মুনাফা দেয়ার লোভ দেখিয়ে দেশ বন্ধু নামক পল্লী উন্নয়ন/যমুনা নামে একটি ভূয়া এনজিও প্রতিষ্ঠা করে। উক্ত এনজিওতে বিভিন্ন গ্রাহককে অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে গরীব অসহায় লোকদের টাকা বিনিয়োগ এবং টাকা ঋণ নেয়ার জন্য উস্কানি প্রদান করে।

অসহায় লোকজন তাদের উস্কানিতে টাকা বিনিয়োগ করে এবং তাদের এনজিও হতে ফাঁকা চেক জমার মাধ্যমে ঋণ উত্তোলন করলে এনজিও কর্মীরা ব্লাংক চেক ব্লাক মেইল এর মাধ্যমে অতিরিক্ত টাকা এবং গ্রাহকের জমাকৃত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

অসংখ্য ভূক্তভোগীর অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব চাঁপাইনবাগঞ্জের গোয়েন্দা দল দীর্ঘদিন ধরে উক্ত বিষয়ে তদন্ত শুরু করে। এক পর্যায়ে ২২ সেপ্টেম্বর দেশবন্ধু/যমুনা এনজিও এর মালিকসহ প্রতারক চক্রের ৫ জন সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। এ ঘটনায় জেলার শিবগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।

এদিকে, জেলায় ভূয়া এনজিও’র ছড়াছড়ি। বেশ কিছু এনজিও সাধারণ মানুষের টাকা আত্মসাৎ করে পালিয়ে গেলেও অজ্ঞাত কারণে নিবর ভূমিকায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। জেনেও না জানার ভান করে এভাবে ভূয়া এনজিও প্রতিষ্ঠা এবং মানুষকে স্বর্বশান্ত হওয়ার ঘটনায় কোন তৎপরতা বা ব্যবস্থা না হওয়ায় সচেতন মহলের মনে নানান প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here