ঝিনাইদহে শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টা; বাড়িতে থাকতে ভয় পাচ্ছে সেই শিশুটি!

0
199
স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহ- ঝিনাইদহ সদর উপজেলার পশ্চিম ঝিনাইদহ (ছোট ঝিনাইদহ) গ্রামের ৬ষ্ট শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে নিজ বাড়িতে ধর্ষণ প্রচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এই গ্রামের হুরমতের ছেলে করিম রাতে ঘরে উঠে শিশুটিকে ধর্ষনের চেষ্টা চালায়। শিশুটির মায়ের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে করিম তার মেয়েকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল।
গত ১৮ আগষ্ট ঝিনাইদহ শহরে তার মায়ের ডিউটি থাকার সুযোগ নেয় করিম। পিতা মানসিক প্রতিবন্ধি। ঘটনার দিন রাতে বাড়িতে ছিল দুই ছেলে মেয়ে ও প্রতিবন্ধী স্বামী। এই সুযোগে ঘরে উঠে ঐ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টা চালাই লম্পট করিম। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী জানায়, সন্ধ্যাবেলা করিম তার বাবা-ভাইয়ের জন্য মিষ্টি দেয় খেতে।
সেই মিষ্টি খেয়ে বেঘোরে ঘুমিয়ে পড়ে তারা। রাত আনুমানিক ১০টার দিকে করিম ঘরে ওঠে। ঠিক পেয়ে শিশুটি তার বাবাকে অনেক ডাকা-ডাকি করেও জাগাতে পারছিল না। পরে জোরে কান্নাকাটি শুরু করলে বাবা ও পাড়ার অন্য লোক ছুটে এলে পালিয়ে যায় করিম। শিশুটি জানায়, ওই রাতে ভয়ে তারা বাড়ির পাশের একটি দোকানে রাত কাটিয়েছে।
ঐ শিশুটির মা জানায়, এর আগেও করিম তার মেয়ের যৌন হেনস্তা করেছে। আমি তাকে সাবধান ও করেছি। তার পরেও গত বুধবার আমি বাড়িতে না থাকায় আবার সে আমার মেয়েকে ধর্ষন চেষ্টা চালায়। ওই গৃহবধু আরা জানান, আমার স্বামী কাজ করতে পারেনা। আমি উপার্জন করে সংসার চালায়। মেয়েকে একা বাড়িতে রেখে কাজেও যেতে পারছি না। আমি এর বিচার চায়।
এই বিষয়ে বেতাই-চন্ডিপুর ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই সিরাজুল করিম বলেন, আমি ছুটিতে আছি। এই বিষয়ে কিছুই জানিনা। একই ক্যাম্পের এএসআই খোরশেদ বলেন, আমি ঘটনা আগে শুনিনি। এখনই খোঁজ নিতে যাচ্ছি। এদিকে খবর পেয়ে সাংবাদিকরা ভিকটিমের বাড়িতে গেলে মেয়ের মা ও মেয়ে বর্ননা তুলে ধরেন।
তাদের অভিযোগ স্থানীয় কিছু মাতব্বর এই ঘটনা ধামাচাপা দিতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এর আগেও পশ্চিম ঝিনাইদহ গ্রামে এক প্রতিবন্ধীর স্ত্রীকে ধর্ষণ করে এক কবিরাজ। কিন্তু সে ঘটনায় কথিত গ্রাম্য মাতুব্বররা মামলা করতে দেয়নি। ধর্ষকের কাছ থেকে দেড় লাখ টাকা আদায় করে ধর্ষিতাকে ৪০ হাজার টাকা দিয়ে বাকি টাকা খেয়ে ফেলে বলে এলাকায় কথিত আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here