কালা সুলতানের মূল্য সাত লাখ

0
134

শরীয়তপুর প্রতিনিধি ॥ শরীয়পতুরের নড়িয়া উপজেলার ঢালীকান্দি গ্রামে মাওলানা আব্দুল হাকিম পালন করেছেন একটি সুদর্শণ ষাড় গরু। গরুটির গায়ের রং কুচকুচে কালো হওয়ায় দেহের গঠন ও আকৃতি অনেক বেশী দৃষ্টি কাড়ছে ক্রেতার। তাই তার নাম রেখেছেন কালা সুলতান।

প্রতিদিনই কালা সুলতানকে দেখতে ও ক্রয়ের প্রস্তাব নিয়ে আসে অনেকে। তবে কালা সুলতানের রক্ষক মাওলানা আ. হকিম তার মূল্য হাকছেন সাত লাখ টাকা। ইতোমধ্যে কালা সুলতানের মূল্য ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত দিতে ক্রেতারা আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলে দাবী করছেন মাওলানা আ. হাকিম।

মাওলানা আ. হাকিম বলেন, তিনি গত ১৪ মাস পূর্বে হাট থেকে কালা সুলতানকে নিয়ে আসেন। এই পর্যন্ত তিনি ও তার সন্তানরা মিলে কালা সুলতানের খাদ্যের চাহিদা পূরণ সহ অন্যান্য সকল চাহিদা পূরণ করে করে আসছেন। তার পরিবারের সাথে কালা সুলতানেরও আত্মিক সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।

তিনি কালা সুলতানের নিত্য দিনের খাদ্য তালিকায় রেখেছেন, ধনচে বীজ, ভুট্টা, ছোলা, আলু, ভুসি, কুড়া, সরিষার ও নারিকেল খৈল, খের-কুটা, চিটাগুর এবং কাঁচা ঘাস। খাবার সামনে দেওয়ার সাথে সাথেই কালা সুলতান তা খেয়ে নেয়। কালা সুলতানের ক্ষুদা পেলে এবং খাবার দিতে দেরী হলে বেঁধে রাখার রশি ও শিকল ছিড়ে ফেলে। কালা সুলতানকে নাম ধরে ডাকলে সাড়া দেয়।

ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা কালো সুলতানের পিঠে উঠে বসে। গভীর রাতেও কালা সুলতান বলে ডাকলে গোয়াল ঘর থেকে ফুসফুস শব্দ ও ম-া বলে শব্দ করে।   তিনি আরো জানান, কালো সুলতানের দেহের উচ্চতা ৬ ফুট, দৈঘ্য, সাড়ে ৯ ফুট ও প্রস্থ (গোলাকার) ৯ ফুট।

বিশেষজ্ঞদের মতে বর্তমানে কালো সুলতানের ওজন রয়েছে ২৭ মন। দেহের ওজনের তিন ভাগের একভাগ বর্জ বাদ দিলে ১৭ মনের বেশী সলিড মাংস পাওয়া যাবে কালা সুলতান থেকে। কালা সুলতানকে সম্পূর্ণ ভাবে প্রাকৃতিক খাদ্য দেয়া হয়েছে। কোন কৃত্তিম খাদ্য বা মোটা তাজাকরণ কোন পদ্ধতি কালা সুলতানের উপর ব্যবহার করা হয়নি। যারা নির্ভেজাল পশু কোরবানী দিতে আগ্রহ প্রকাশ করছে তাদের জন্য কালা সুলতান উপযোগি।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here