Sunday, October 25, 2020
Home কৃষি ও কৃষাণ কালীগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী ফজলে রাব্বীর ঐতিহ্যবাহি মাল্টা বাগান

কালীগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী ফজলে রাব্বীর ঐতিহ্যবাহি মাল্টা বাগান

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ইউটিউবে মাল্টা বাগানের ভিডিও দেখে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী ফজলে রাব্বী (২৫) আহদান এগ্রো প্রজেক্ট নামে একটি প্রজেক্টের মাধ্যমে বাবার সাথে পরামর্শ করে শুরু করে মাল্টা বাগান’।
কৃষি উদ্যোক্তা রাব্বি ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার তত্ত্বিপুর গ্রামের আসাদুল ইসলাম মোল্লার বড় ছেলে। রাব্বি ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিনান্স এন্ড মার্কেটিং এর মাষ্টের্সের ছাত্র। মাল্টা দিয়ে শুরু করলেও ১০ বিঘা জমিতে গড়ে তোলা আহদান এগ্রো প্রজেক্ট বর্তমানে ২ বিঘা জমিতে ড্রাগন, ১ বিঘা জমিতে কমলা ও চায়না কমলাসহ বাকি জমিতে মৌসুমী ফসলের চাষ করা হচ্ছে।
এর মধ্যে ড্রাগন ও মাল্টা গাছে গত বছর থেকে ফল আসতে শুরু করেছে। ফল বিক্রি করে আশানুরূপ মুনাফা পাওয়ায় প্রজেক্ট আরো বর্ধিত করার স্বপ্ন দেখছেন তিনি। এবারে প্রজেক্ট যোগ করতে চাচ্ছেন গবাদী পশুপালন।
রাব্বি জানান, ২০১৬ সালে দেড় বিঘা জামিতে লাগানো মাল্টা গাছে মাত্র আড়াই বছর বয়সেই ফল এসেছিল। এবছর ১৫০ টি গাছের প্রায় প্রতিটি গাছেই ফল এসেছে। এর মধ্যে কিছুকিছু গাছে ১ মণের বেশি ফল এসেছে।সাধারণত আগষ্ট, সেপ্টেম্বর মাসে ফল বিক্রির উপযোগী হয়। বয়সের সাথে সাথে ফলের পরিমাণও বৃদ্ধি পাবে বলে রাব্বি জানান।
বর্তমানে তার প্রজেক্ট ৩ বিঘা জমিতে বারি-১, বারি-২ ও ভিয়েতনামী জাতের মাল্টার চাষ থাকলেও নতুন উদ্যোক্তাদের বারি-১ জাতের মাল্টা চাষের পরামর্শ দেন তিনি। ১ বিঘা (৩৩ শতাংশ) জমিতে মাল্টা গাছ লাগিয়ে ৫ বছরের মাথায় খরচ বাদে কমপক্ষে দেড় লক্ষ টাকা আয় করা সম্ভব বলে তিনি জানান।
গাছের পরিচর্যা নিয়ে কথা হলে রাব্বি জানান, মাল্টা গাছে অধিক পরিমাণে জৈব সার ও অল্প পরিমাণে ইউরিয়া, ফসফেট ও পটাশ সার প্রয়োগ করতে হয়। খরা মৌসুমে সেচ দিতে হয়। এ ছাড়া বাড়তি কোনো যত্ন নিতে হয় না।
মাল্টা গাছে সাধারণত ভাইরাস জনিত রোগ, পাতা মোড়ানো ও ছত্রাকজনিত রোগ দেখা যায়। ফল আসলে পিপঁড়া ও মিলিবাগ পোকার আক্রমণ হতে পারে। এইজন্য ক্যারাইটি, কপার অক্সিক্লোরাইড ও সাইফারম্যাথিন নামক কিটনাশক কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকতা হুমায়ূন কবীর জানান, এ উপ জেলায় ৩-৪ বছর ধরে ড্রাগন ও মাল্টা চাষ হচ্ছে। এ দুটি ফসলই বেশ লাভজনক।
বর্তমানে রাব্বিদের মতো অনেক শিক্ষিত যুবক কৃষিতে এগিয়ে আসছে। এরাই আমাদের আলোর দিশারী। কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি অফিস এ ধরনের কৃষি উদ্যোক্তা দের খুঁজে বের করে বিভিন্ন সময়ে ট্রেনিং দিয়ে তাদেরকে আরো দক্ষ করে গড়ে তোলার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

করোনাভাইরাস: দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জনের মৃত্যু

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে। এই সময়ে নতুন করে আরও ১৩০৮ জন কোভিড-১৯ রোগী...

বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়ীতে প্রেমিকার অনশন হয় বিয়ে, না হয় আত্মহত্যা!

তারেক জাহিদ, ঝিনাইদহ- ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের চরপাড়া গ্রামে বিয়ের দাবিতে প্রেমিক রাশেদ মন্ডল(৩০) এর বাড়িতে ৫ দিন ধরে অনশনে থাকার পর অবশেষে...

দু’দিনের বর্ষণে বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষতি !

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ জেলায় দু দিনের বর্ষণে বিভিন্ন ফসলের ক্ষতি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে শীতকালীন শাক সবজির। ফুলকপি, বাধাকপি, সিম, বেগুন, বরবটির...

৭০ বছরের প্রতিবন্ধি বৃদ্ধাকে ধর্ষন চেষ্টায় মতি ফকির !

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামে ৭০ বছরের এক প্রতি বন্ধি বৃদ্ধাকে ধর্ষনের চেষ্টা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ তদন্তে শুক্রবার...

Recent Comments