করোনায় শিবগঞ্জে ৪০ হাজার পরিবারকে সহায়তা দিয়েছে ‘জিকে ফাউন্টেডশন’ !

0
56
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ করোনাকালে শিবগঞ্জ উপজেলার অসহায়, দরিদ্র, দুঃস্থ, কর্ম হীন, করোনা আক্রান্ত পরিবারসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে শিবগঞ্জের বীরমুক্তিযোদ্ধা কসিম উদ্দিন ও তার স্ত্রী গুলনাহারের নামে প্রতিষ্ঠিত জিকে ফাউন্ডেশন।
মানুষের সেবা করতে গিয়ে নিজে করোনা আক্রান্ত হয়েও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেই আবারও বসে থাকেন নি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম। দূর্যোগ সময়ে মানুষের পাশে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন শিবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সৈয়দ মনিরুল ইসলামও।
প্রাণঘাতি করোনা সংক্রমন শুরু হওয়ার পর থেকে ‘জিকে ফাউন্ডেশন’ এর অর্থায়নে এবং ‘সৈয়দ পরিবার’ এর আন্তরিকতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় করোনায় কর্মহীন ৪০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন মরহুম বীরমুক্তিযোদ্ধা কসিম উদ্দিনের ছেলে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম।
সৈয়দ নজরুল ইসলাম জানান, করোনাকালের শুরুতে উপজেলায় ২২ হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়। দ্বিতীয় ধাপে সহায়তা পেয়েছেন আরও ১৮ হাজার পরিবার।
তিনি জানান, শুধু একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে নয়, মানবিক মূলবোধ নিয়ে আমৃত্যু মানুষের পাশে থাকতে চাই। মানুষের সেবা করতে ভালো লাগে। করোনাকালে একদিনের জন্য এলাকার লোকজন থেকে বিচ্ছিন্ন থাকিনি। স্বপরিবারে করোনায় আক্রান্ত হয়েছি।
সুস্থ হয়ে আবার মাঠে নেমেছি। তিনি বলেন, জিকে ফাউন্ডেশনের ২০ জনের একটি টিম রয়েছে, যারা সংকটাপন্ন ব্যক্তির খবর পেলেই প্রয়োজনীয় সহায়তা নিয়ে তাদের বাড়িতে ছুটে যান। আবার করোনা আক্রান্ত রোগীর বাসায় রাতের আঁধারেও সহায়তা পৌঁছে দেন।
ইতোমধ্যে ছয় লাখের বেশি মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। করোনাকালে যাতে এলাকার একটি মানুষও খাবারের কষ্টে না থাকে, এটা নিশ্চিত করতে চাই। তিনি আরও বলেন, গত ঈদ-উল ফিতরে ১০ হাজার মানুষের মাঝে শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ করা হয়েছে।
এছাড়া দিনমজুর, ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, ভ্যানচালক, পরিবহন শ্রমিক, ফেরিওয়ালা ও চায়ের দোকানিদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী দেয়া হয়। এমনকি করোনায় আক্রান্ত রোগীদের দুই মাসের নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়।
এদিকে, উপজেলার কোনো এলাকা থেকে হঠাৎ খবর এলো কেউ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে ছেন।  এখনই তাকে হাসপাতালে নিতে হবে। এমন খবর জানার পরপরই সেখানে ছুটে যায় জিকে ফাউন্ডেশ-নের অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস। রোগীকে বিনামূল্যে পৌঁছে দেয়ার পাশাপাশি চিকিৎসার প্রয়োজনীয় খরচও দেয়া হয়।
উল্লেখ্য, মানুষের সেবার লক্ষে ৫ বছর আগে শিবগঞ্জের বীরমুক্তিযোদ্ধা কসিম উদ্দিন ও তার স্ত্রী গুল-নাহার বেগমের নামে ‘জিকে ফাউন্ডেশন’ প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠাকাল থেকেই এই সেবা প্রতিষ্ঠানটি সাধারণ মানুষের বিভিন্নভাবে সেবা দিয়ে আসছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here