মির্জাপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে উপবৃত্তির টাকা প্রদানে ফি আদায়ের অভিযোগ

0
145
টাঙ্গাইলের মির্জাপুর মহিলা কলেজের এইচএসসি ও ডিগ্রি প্রথমবর্ষের ছাত্রী থেকে উপবৃত্তির ফরম নিতে ২০০ টাকা করে যোগাযোগ ও অনলাইন ফি নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে বৃত্তি পাওয়ার আগেই কলেজ কর্তৃপক্ষকে  এই ফি দিতে হয়েছে। এতে কলেজের শিক্ষক ও অভিভাবকদের মধ্যে চাপা ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
কলেজ সূত্রে জানা গেছে, মির্জাপুর মহিলা কলেজে এইচএসসি প্রথমবর্ষে তিন বিভাগে ২৬০ জন ও দ্বিতীয় বর্ষেও ২৬০ জন এবং ডিগ্রিতে তিনবর্ষে ১২০জন ছাত্রী রয়েছে। এরমধ্যে ডিগ্রি প্রথম বর্ষে ৩২ জন ছাত্রী আছে।
উপবৃত্তি পেতে কলেজ থেকে একটি ফরম সংগ্রহ করে তা জমা দিতে হয়। এজন্য কলেজে অধ্যয়নরত এইচএসসি প্রথম বর্ষের ২৬০ জন ও ডিগ্রি প্রথমবর্ষের ৩২ জন ছাত্রীকে ফরম দেয়া হয়।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কলেজের কয়েকজন শিক্ষক বলেন, ‘অধ্যক্ষ নিজের একক সিদ্ধান্তে এ টাকা নিয়েছেন। মহামারি এই করোনা মৌসুমে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ২০০ টাকা করে নেয়া অমানবিক কাজ। এছাড়া অধ্যক্ষ হারুন অর রশিদের বিরুদ্ধে এর আগেও নানা অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে বলে তারা জানান।
শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা জানান, কয়জন মেয়েকে উপবৃত্তি দেয়া হবে তার সঠিক তথ্য অধ্যক্ষ দিতে পারেননি। কিন্তু সব ছাত্রীর কাছ থেকেই ২০০ টাকা করে নিয়েছেন।
কয়েকজন ছাত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উপবৃত্তির টাকা উত্তোলনের আগে ফরম পূরণ করতে হবে বলে কলেজ থেকে জানানো হয়েছিল। এ বাপারে, প্রত্যেক ছাত্রীকে ২০০ টাকা করে কলেজে জমা দিয়ে ফরম নিতে হয়েছে। এজন্য তাদের কোনো রসিদ দেয়া হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here