মহানবীকে তাচ্ছিল্য করে ইবি শিক্ষার্থীর স্ট্যাটাস বিচার চায় ছাত্রলীগ-সাধারণ শিক্ষার্থীরা !

0
630
ইবি প্রতিনিধি:  বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (স:) কে তাচ্ছিল্য করে নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) এক শিক্ষার্থী। তার এই স্ট্যাটাসকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন মাধ্যমে নিন্দার ঝড় তুলেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।
সেই সাথে তার বিচারের দাবিতে সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর বরাবর অভিযোগ পত্র দায়ের করেন বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। রিজভী আহমেদ ওশান নামের ওই শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন ও ভূমি ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র এবং নড়াইল জেলা ছাত্রলীগের সদস্য।
জানা যায়, সম্প্রতি হিন্দুদের তীর্থস্থান হিসেবে পরিচিত চন্দ্রনাথ পাহাড়ে আযান দেয়া এবং সেই ভিডিও ফেসবুকে পোস্ট করায় মাদ্রাসার দুই ছাত্রকে গ্রেফতার করে পুলিশ।ঘটনার জের ধরে গত বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) মহানবীকে তাচ্ছিল্য করে একটি স্ট্যাটাস দেন ওশান।

তার স্ট্যাটাসটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে নিন্দার ঝড় উঠে। একই সাথে তার এ স্ট্যাটাস ধর্মীয় আঘাত এনেছে দাবি করে তার বিচারের দাবি জানায় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা। পরে সোমবার বিশ^বিদ্যালয় কতৃপক্ষ বরাবর অভিযোগ প্রদান করেন তারা।
অভিযোগে বলা হয়েছে, ওশান কথিত ছাত্রলীগ কর্মী পরিচয়ে শেষ নবীকে কটুক্তি ও ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব ফেসবুকে প্রকাশ করেছে। তার এসব কর্মকা- সংবিধান বিরোধী ও ছাত্রলীগকে ইসলাম বিদ্বেষী প্রমাণ করার এজেন্ডাস্বরুপ বলে ইবি ছাত্রলীগ ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা মনে করে।
তার কর্মকান্ড পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবি জানাচ্ছি। শাখা ছাত্রলীগ কর্মী রেজওয়ানুল ইসলাম বলেন, ইসলাম ধর্মের মৌলিক বিষয়গুলো নিয়ে বিভিন্ন সময় ফেসবুকে কটাক্ষ করে। সম্প্রতি রাসূলুল্লাহ (সাঃ) কে নিয়ে জড়িয়ে দেয়া স্ট্যাটাস অত্যন্ত আপত্তি কর। আমার ধারণা মতে সংগঠনকে বিতর্কিত করা এবং নৈরাজ্য সৃষ্টি করাই তার লক্ষ্য।
বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী নূর আলম বলেন, ‘চন্দ্রনাথ পাহাড়ের ঘটনাটি যেমন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শামিল তদ্রুপ ওশান সেই ইস্যুটির সঙ্গে আমাদের প্রিয় নবীকে নিয়ে যে বিদ্রুপ করেছে সেটাও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের শামিল। বঙ্গবন্ধুর ধর্ম নিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়। সব ধর্মের সমান সুযোগই হলো ধর্মনিরপেক্ষতা। বাংলাদেশে প্রচলিত আইন অনুযায়ী আমি তার সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী করছি।’
এসমম্পর্কে ইবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ বলেন, ‘ধর্মীয় কটুক্তি সবথেকে কষ্টকর বিষয়। সে ছাত্রলীগের কর্মী বা যেই হোক না কেন অপরাধী তো অপরাধীই।সাংগঠনিক ভাবে তার শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।’ এবিষয়ে বক্তব্য জানতে অভিযুক্ত রিজভী আহমেদ ওশানকে একাধিকবার ফোন দিলেও তাকে ফোনে পাওয়া যায় নি।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘অভিযোগপত্র হাতে পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে ভিসি স্যারের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here