নাচোল পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণ ॥ আবারও মেয়র আব্দুর রশিদ খাঁন ঝালু

0
536
চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল পৌরসভায় শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমূখর পরিবেশে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। ভোট গণণায় নাচোল পৌরসভার বর্তমান মেয়র আব্দুর রশিদ খাঁন ঝালু আবারও আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।
রবিবার সকাল ৮ টায় নাচোলের ১০টি কেন্দ্রে একযোগে ভোট গ্রহন শুরু হয়। প্রথমবারের মত ইভিএম’র মাধ্যমে এই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।
নাচোলের কয়েকটি কেন্দ্র ঘুরে দেখা গেছে, ভোটারদের উপস্থিতি ভালো। কোন ভোট কেন্দ্র থেকেই কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। নির্বাচনের ভোট গণণার পর ফলাফলে জানা গেছে, নাচোল পৌরসভার বর্তমান মেয়র আব্দুর রশিদ খাঁন ঝালু আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী পেয়েছেন ৪৫৩২ ভোট।
তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রেজাউল করিম বাবু (চামুচ) প্রতীক পেয়েছেন ২৮৯২ ভোট।  এছাড়া বিএনপির (ধানের শীষ) প্রার্থী মাসউদা আফরোজা হক সুচি ভোট পেয়েছেন ২০৩১টি ভোট এবং বিএনপির বিদ্রোহী আমানুল্লাহ আল মাসুদ(রেল ইঞ্জিন) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৭৯১ ভোট।
জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং কর্মকর্তা মোতাওয়াক্কিল রহমান জানান, অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠ নির্বাচনে সব ধরনের প্রস্তুতি ছিলো নির্বাচন অফিসের। সার্বিক নিরাপত্তায় মাঠে কাজ করেছে আইন-শ্ঙ্খৃলা বাহিনীর সদস্যরা। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই সুষ্ঠভাবে ভোট গ্রহণ সম্পপন্ন হয়েছে।
নির্বাচনে আব্দুর রশিদ খাঁন ঝালু আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী পেয়েছেন ৪৫৩২ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রেজাউল করিম বাবু (চামুচ) প্রতীক পেয়েছেন ২৮৯২ ভোট।
এছাড়া বিএনপির (ধানের শীষ) প্রার্থী মাসউদা আফরোজা হক সুচি ভোট পেয়েছেন ২০৩১টি ভোট এবং বিএনপির বিদ্রোহী আমানুল্লাহ আল মাসুদ(রেল ইঞ্জিন) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৭৯১ ভোট।
উল্লেখ্য, নাচোল পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন প্রার্থী ভোট যুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এছাড়াও ৯টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। নির্বাচনে উভয় দলেরই একজন করে বিদ্রোহী প্রার্থী ভোটের মাঠে ছিলো।
তিনি আরো জানান, এ নির্বাচনে ১০জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৪৮জন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার, ৯৬জন পোলিং অফিসার ছাড়াও ৯ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এবং ১জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করেছেন।
এছাড়া ও র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে টহলে ছিলো। নির্বাচনে মোট ভোটার-১৫,০০৮ জন। মোট ভোট কেন্দ্র-১০টি। ভোট কেন্দ্রগুলোতে পুলিশ এবং আনসার সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here